alo
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ভারতকে হারিয়ে পাকিস্তানের অবিশ্বাস্য জয়

প্রকাশিত: ০৭ অক্টোবর, ২০২২, ০৬:২৪ পিএম

ভারতকে হারিয়ে পাকিস্তানের অবিশ্বাস্য জয়
alo

নিউজনাউ ডেস্ক: মাত্র একদিন আগেই থাইল্যান্ডের কাছে   বিধ্বস্ত  হয়েছিল পাকিস্তান  । কিন্তু পাকিস্তান মানেই যে অঘটনের দল, তার প্রমাণ দিল তারা আরও একবার। ওই পাকিস্তান এবার হারিয়ে দিলো ভারতকে।

শুক্রবার সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নারী এশিয়া কাপের ম্যাচে পাকিস্তানের কাছে ১৩ রানে হেরেছে ভারত। আগে ব্যাট করতে নেমে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৩৭ রানের সংগ্রহ পায় পাকিস্তান। জবাব দিতে নেমে দুই বল আগেই ১২৪ রানে অলআউট হয়ে গেছে ভারত।  


প্রথম কাজটি করে দিয়েছেন নিদা দার। তার অনবদ্য ইনিংসে ভারতকে মাঝারি লক্ষ্যের চ্যালেঞ্জ ছোঁড়ে বিসমাহ মারুফের দল। পরে বোলিংয়ে নেমে ভারতের বিশাল ব্যাটিং লাইন আপকে ১২৪ রানে গুড়িয়ে দেন নাশারা-সাদিয়ারা। তাতে তৃতীয়বারের মতো এশিয়ার পরাশক্তি ভারতকে হারানোর গৌরব অর্জন করে পাক নারীরা।
টস জিতে শুরুতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় পাকিস্তান। দুই ওপেনার মুনীবা আলী ও সিদ্রা আমিনের ২৬ রানের জুটিতে শুরুটা ভালোই হয় বিসমাহ মারুফের দলের। কিন্তু ভারতের সামনে বরাবরই নার্ভাস পাকিস্তান হঠাত করেই যেন খেই হারিয়ে ফেলে। 

১১ রান করে পূজা ভাস্ত্রকারের বলে সিদ্রা আমিন ফিরলে মাত্র ৭ রানের ব্যবধানে আরও ২ উইকেট হারায় পাকিস্তান। এরপর নিদা দারকে নিয়ে দলের হাল ধরেন অধিনায়ক বিসহাম মারুফ। দুজনে মিলে গড়েন ৭৬ রানের জুটি। দ্রুত রান তুলতে থাকা নিদা ফিফটি পেলেও বিসমাহ ফেরেন ৩২ রানে। 
শেষ দিকে আয়শা নাসিম ও আলিয়া রাজের ছোট ছোট অবদানে ১৩৭ রানে থামে পাকিস্তানের ইনিংস। ৩৭ বলে ৫৬ রান করে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন নিদা।

এই টুর্নামেন্টের সবচেয়ে শক্তিশালী ব্যাটিং লাইন-আপ বলা হয় ভারতকে। ভাবা হচ্ছিল ‘অজেয়’ও। তবে পাকিস্তান তাদের হারিয়ে দিলো। ১৩৮ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরু থেকেই ছন্দ খুঁজে পায়নি ভারত। দাঁড়াতে পারেনি কোনো জুটিও। তাদের ২৩ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙে সাবহিনেনি মেঘলা ফিরলে।  

১ চার ও ছক্কা হাঁকিয়ে ভালো কিছুর ইঙ্গিত দিচ্ছিলেন এই ব্যাটার। কিন্তু ১৪ বলে ১৫ রান করে নাসরা সান্ধুর বলে সিধরা আমিনের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরত যান তিনি। এরপর ৮ বলে ২ রান করে আউট হন টুর্নামেন্টের সবচেয়ে ধারাবাহিক ব্যাটার জেমাইমা রদ্রিগেজ।  

আরেক উদ্বোধনী ব্যাটার স্মৃতি মান্ধানাও নিজের ইনিংসকে লম্বা করতে পারেননি। ১৯ বলে ১৭ রান করে এই ব্যাটারও শিকার হন নাসরার। ভারতের ব্যাটিংয়ের মূল ভিত্তি ভেঙে যাওয়ার পর আশার আলো হয়ে ছিলেন দায়ালান হেমালাতা।  

কিন্তু তার সঙ্গে ভুল বুঝাবুঝিতে রান আউট হয়ে যান পূজা বস্ত্রাকার। হেমালাতাও নিজের ইনিংসকে লম্বা করতে পারেননি। ২২ বলে ২০ রান করে তুবা হাসানের বলে বোল্ড হন তিনি। অধিনায়ক হারমানপ্রিত কৌর ১২ বলে ১২ রান করে ফিরলে হারটা তখন কেবল সময়ের ব্যাপার ছিল ভারতের জন্য। হয়েছেও তাই। ১২৪ রানে থামে ভারতের ইনিংস।

নিউজনাউ/এসএইচ/২০২২

X