alo
ঢাকা, বুধবার, ফেব্রুয়ারী ১, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ১৯ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সংসদে যাবে না জাপা, জিএম কাদেরকে করতে হবে বিরোধীদলীয় নেতা

প্রকাশিত: ৩০ অক্টোবর, ২০২২, ১০:৫০ পিএম

সংসদে যাবে না জাপা, জিএম কাদেরকে করতে হবে বিরোধীদলীয় নেতা
alo

 

নিউজনাউ ডেস্ক: সংসদ বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে বিরোধী দল জাতীয় পার্টি (জাপা)। দলটির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদেরকে বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে গেজেট প্রকাশ না করা পর্যন্ত অধিবেশনে অংশ নেবে না তারা।

জাপার মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু রবিবার রাতে গণমাধ্যমে জানিয়েছেন, 'সংসদীয় দল জিএম কাদেরকে বিরোধীদলীয় নেতা নির্বাচিত করেছে। কিন্তু স্পিকার দুই মাসেও তাঁকে স্বীকৃতি দেননি। স্পিকারের কার্যালয় বলছে, রওশন এরশাদ বিরোধীদলীয় নেতা। জিএম কাদের আমাদের নেতা। আমরা তাহলে কার নেতৃত্বে সংসদে যাবো?'

রবিবার জাতীয় পার্টির সংসদীয় দলের সভায় সর্বসম্মতিক্রমে এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে বলে তিনি জানান। বৈঠকে জাপার সংসদীয় দলের ২৬ সদস্যের মধ্যে ২১ জন উপস্থিত ছিলেন।

জাপা চেয়ারম্যানের প্রেস সচিব-২ খন্দকার দেলোয়ার জালালী স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপিতে বলা হয়েছে, জি এম কাদেরকে বিরোধীদলের নেতা না করা পর্যন্ত জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্যরা আর সংসদে যাবেন না। দুই মাস আগে দলে সংসদীয় কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী জি এম কাদেরকে বিরোধীদলের নেতা করার চিঠি স্পিকারের কার্যালয়ে পাঠানো হয়।

থাইল্যান্ডে চিকিৎসাধীন বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ দলীয় নেতৃত্ব থেকে জিএম কাদেরকে সরাতে গত ৩১ আগস্ট চিঠিতে তিনি নিজেকে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক ঘোষণা করে জাপার 'কাউন্সিল'। একে অবৈধ আখ্যা দিয়ে রওশন এরশাদকে সরিয়ে জিএম কাদেরকে বিরোধীদলীয় নেতা নির্বাচিত করে পরেরদিন স্পিকার ড. শিরীন শারমিনকে চিঠি দেয় জাপার সংসদীয় দল। দলটির ২৬ এমপির ২৪ জন জিএম কাদেরকে সমর্থন জানালেও এখনও বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে জিএম কাদের স্পিকারের স্বীকৃতি পাননি। জাপার তাগিদে গত দুই মাসে স্পিকারের কার্যালয় থেকে একাধিকবার জানানো হয়েছে, বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রবিবারের সংসদীয় দলের সভায় উপস্থিত জাপার ২১ এমপি ফের জি এম কাদেরকে সমর্থন। সভার পর জাপা মহাসচিব সংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালেও সংসদ বর্জনের আভাস দেননি। তখন তিনি বলেন, স্পিকারের সিদ্ধান্ত জানার অপেক্ষায় রয়েছেন। সোমবার সংসদ অধিবেশনে এ বিষয়ে স্পিকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হবে।

জাপা সূত্র জানিয়েছে, সন্ধ্যায় দলের মহাসচিবসহ কয়েকজন এমপি স্পিকারের সঙ্গে দেখা করেন। সেখানে তাঁরা নিশ্চিত হন, রওশন এরশাদকেই বিরোধীদলীয় নেতার পদে চায় সরকার। জিএম কাদের স্বীকৃতি পাবেন না। এরপরেই সংসদ বর্জনের কঠোর সিদ্ধান্ত নেয়, কয়েক মাস আগ পর্যন্ত সব বিষয়ে সরকারের সুরে কথা বলে গৃহপালিত বিরোধীদলের তকমা পাওয়া জাপা।

হঠাৎ সরকারের সমালোচনায় মুখর জাপায় কয়েক মাস ধরেই উথালপাতাল চলছে। রওশন এরশাদ ও তাঁর অনুসারীদের দাবি, জিএম কাদের বিএনপি জামায়াতের সুরে কথা বলছে। রওশনকে সমর্থন করে দল থেকে বহিস্কার হয়েছেন মসিউর রহমান রাঙ্গা। বিরোধীদলীয় চিফহুইপের পদও হারিয়েছেন।

রাঙ্গাকে অব্যহতি দেওয়ার চিঠি স্পিকারকে দিয়েছে জাপা। রবিবারের সংসদীয় দলের সভায় তিনি ছিলেন না। রাঙ্গা বলেছেন, তাঁকে সভায় ডাকার সাহস নেই জিএম কাদেরের। রাঙ্গার দাবি, চিফহুইপ পদে বহাল আছেন। রোববার সংসদের বৈঠকে শোক প্রস্তাবের আলোচনায় বক্তব্য দেওয়ার জন্য স্পিকার তাঁর নাম আহবানকালেও বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ সম্বোধন করেছেন। রাঙ্গার দাবি, সংসদীয় দলের সভা ছিল অবৈধ।

সভায় রওশন এরশাদ, তাঁর ছেলে রাহগির আলমাহি এরশাদ, মসিউর রহমান রাঙ্গা, সেলিম ওসমান ও মেজর (অব.) রানা মোহাম্মদ সোহেল অনুপস্থিত ছিলেন। মুজিবুল হক চুন্নু জানিয়েছেন, সেলিম ওসমান ব্যাংককে চিকিৎসাধীন। রানা সোহেল ঢাকার বাইরে। তবে তাঁরাও জিএম কাদেরকে সমর্থন করেছেন।

সভা সূত্র জানিয়েছে, কয়েকজন এমপি সংসদ বর্জনের অভিমত দেন। আবার কেউ কেউ কিছুক্ষণের জন্য ওয়াকআউট করার পক্ষে মত দেন।

নিউজনাউ/পিপিএন/২০২২

X