alo
ঢাকা, বুধবার, ফেব্রুয়ারী ১, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ১৯ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
দুর্গাপূজা

সারদেশে মন্দির-মণ্ডপে নিরাপত্তা জোরদার

প্রকাশিত: ০১ অক্টোবর, ২০২২, ০৯:০২ এএম

সারদেশে মন্দির-মণ্ডপে নিরাপত্তা জোরদার
alo


নিউজনাউ ডেস্ক: সনাতন হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজা শুরু হচ্ছে আজ। বরাবরে মতো এবারও পূজায় নিরাপত্তা জোরদার করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

মন্দিরে সিসিটিভি স্থাপন, মোবাইল টিম পরিদর্শন, প্রবেশপথে দর্শনার্থীদের পরীক্ষা করা, পর্যাপ্ত সংখ্যক স্বেচ্ছাসেবক রাখাসহ বিশেষ পাহারার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। শুধু ঢাকা না, সারাদেশের মন্দির ও মণ্ডপে জোরদার করা হয়েছে নিরাপত্তা।

গ্রামের মণ্ডপগুলোতে সিসি ক্যামেরা না থাকলেও সার্বক্ষণিক পাহারা দেওয়া হবে। এছাড়া মন্দিরে থাকবে পুলিশ ও আনসার।

শনিবার (১ অক্টোবর) ষষ্ঠী পূজার মধ্যদিয়ে শুরু হয়েছে দুর্গাপূজা। ৫ অক্টোবর বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে শেষ হবে পাঁচ দিনব্যাপী এ উৎসব।

এবার সারাদেশে প্রায় ৩২ হাজার ১৬৮ মণ্ডপে দুর্গাপূজার আয়োজন করা হয়েছে। এর মধ্যে ঢাকা মহানগরে পূজা হবে ২৪১টি মণ্ডপে, যা গতবারের চেয়ে ছয়টি বেশি।

পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. চন্দ্রনাথ পোদ্দার বলেন, সার্বিক নিরাপত্তা বিষয়ে আমরা সংশ্লিষ্ট সবাইকে নির্দেশনা দিয়েছি। সব মণ্ডপে নজরদারির ব্যবস্থা রাখতে বলা হয়েছে। এবার সব মন্দিরে আমাদের স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। যারা ২৪ ঘণ্টা পাহারায় থাকবেন।

এদিকে রাজধানীর ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে পরিদর্শন করতে গিয়ে নিরাপত্তা ব্যবস্থার বিষয়ে ডিএমপি কমিশনার মো. শরিফুল ইসলাম বলেন, পূজাকে কেন্দ্র করে দুই রকমের নিরাপত্তা ঝুঁকি রয়েছে। একটি হলো জঙ্গি হামলা অপরটি গুজব। গত কয়েক মাস আগে থেকে আমরা এটা নিয়ে কাজ করছি। আশা করি জঙ্গিরা ফিল্ডে অপারেশনে আসার আগেই হয়তো আমরা তাদের ধরতে পারবো। আমাদের গোয়েন্দারা কাজ করছে।

তিনি বলেন, কোনো মণ্ডপে প্রতিমা থাকা অবস্থায় ২৪ ঘণ্টা সেখানে মানুষ থাকতে হবে। কেউ না কেউ এখানে পাহারায় থাকবে। ঢাকা মহানগরীতে যেসব জায়গায় প্রতিমা বানানো হচ্ছে আমরা সেখানে প্রত্যেকটি জায়গায় পুলিশ দিয়েছি।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, পাঁচটি ‘ক’ শ্রেণিভুক্ত মন্দিরে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে। ভিআইপির নিরাপত্তার জন্য যে ধরনের নিরাপত্তা থাকে সেই ধরনের থাকবে। বাকি মন্দিরগুলোতে আমাদের পুলিশ সদস্য ও আনসাররা থাকবে। স্থায়ীভাবে মন্দিরের কাছে থেকে তারা দায়িত্ব পালন করবে। বড় পাঁচটি মন্দিরে সিসিটিভি দিয়ে আমরা সহায়তা করবো। বাকি সব মণ্ডপে আয়োজকরা সিসিটিভির ব্যবস্থা করবে।

নিউজনাউ/আরবি/২০২২

X