alo
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ভীষণ লজ্জার, বিমানবন্দরে তছনছ সাফজয়ীদের লাগেজ

প্রকাশিত: ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১২:৪৭ পিএম

ভীষণ লজ্জার, বিমানবন্দরে তছনছ সাফজয়ীদের লাগেজ
alo

নিউজনাউ ডেস্ক: বাংলাদেশের বিমানবন্দরে লাগেজ থেকে মালামাল চুরির ঘটনা হরহামেশাই ঘটে। কিন্তু যেসব মেয়েরা নেপাল থেকে দেশের জন্য নিয়ে এসেছেন বিশাল এক অর্জন, তাদেরকেও এমন কিছুর শিকার হতে হবে তা যেন অবিশ্বাস্যই বটে! সাফজয়ী যে মেয়েরা হিমালয়ের সুবাতাস নিয়ে দেশে ফিরেছিলেন, রাতে খবর এলো তাদের লাগেজে থাকা বেশ কিছু টাকা আর জিনিসপত্রও চুরি হয়েছে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক এয়ারপোর্ট থেকে! 

বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) সাফ জিতে দেশে ফিরে রাজসিক সংবর্ধনা পেয়েছেন সাবিনা-সানজিদারা। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বাফুফে ভবন পর্যন্ত ছাদখোলা বাসে করে এসেছেন। পথে পথে সর্বস্তরের মানুষের অভিনন্দনের বৃষ্টিতে ভিজেছেন সবাই। 

দেখতে হয়েছে মুদ্রার উল্টোপিঠও। গতকাল বিমানবন্দরে সাফজয়ী ফুটবলাররা নামার পর চরম বিশৃঙ্খল অবস্থার সৃষ্টি হয়। সকাল থেকেই বিমানবন্দরের বাইরে অপেক্ষায় ছিলেন অসংখ্য মানুষ। 

বিমানবন্দরের ভিআইপি লাউঞ্জে কয়েক শ ক্যামেরা ও সাংবাদিকদের ভিড় ছিল। ইমিগ্রেশন শেষ করে নারী ফুটবলারদের যে পথে আসার কথা ছিল, ওই পথেও ছিল ভিড়। যে কারণে সংবাদ সম্মেলনও বাতিল করা হয়। মেয়েরা উঠে পড়েন ছাদখোলা বাসে।

বিমানবন্দরের লাগেজ বেল্টের এক পাশে পড়ে ছিল সাবিনা, কৃষ্ণাদের লাগেজগুলো। এয়ারপোর্ট কর্তৃপক্ষের ডাকাডাকির পর বাফুফের পক্ষ থেকে লাগেজগুলো সংগ্রহ করা হয়। কিন্তু বাফুফে ভবনে গিয়ে খেলোয়াড়দের কয়েকজন নিজেদের লাগেজের তালা ভাঙা পান। তখনই জানা যায়, ঢাকা বিমানবন্দর থেকে ডলার ও টাকা চুরি হয় ফুটবলারদের।

যেখানে শামসুন্নাহার সিনিয়রের ৪০০ ডলার এবং কৃষ্ণা রানী সরকারের ৪০০ ডলার ও ৫০ হাজার টাকা চুরি গেছে। এছাড়া মার্জিয়ার কিছু নেপালি রুপি ও অন্যদের সাবান চুরি হয়েছে।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, বিমানবন্দরে একটি লম্বা ব্যাগে ট্রলির মধ্যে ছিল সবকিছু। সেখান থেকে এমন ঘটনা হয়েছে। রাতে বাফুফে ভবনে ফেরার পর বুঝতে পেরেছেন চুরির ঘটনা। এতে শামসুন্নাহার-কৃষ্ণাসহ অন্যদের মন বেশ খারাপ।

কৃষ্ণার বাবা বাসুদেব সরকার জানান, ‘সকালে মেয়ে আমাকে ফোন করেছিল। ওর ভীষণ মন খারাপ। কৃষ্ণা আমাকে বলেছে, ওর লাগেজ থেকে ৪০০ ডলার চুরি করে নিয়েছে। আর শামসুন্নাহারের লাগেজ থেকেও কিছু নেপালি টাকা ও কাপড়চোপড় হারিয়েছে।’

বাংলাদেশ ফুটবল দলের সহকারী কোচ মাহবুবুর রহমান এমন ঘটনায় প্রচণ্ড হতাশ, ‘বিমানবন্দরে নামার পর জানতে পারি কৃষ্ণা, শামসুন্নাহারসহ আমাদের দলের ফিজিওর বেশ কিছু জিনিসপত্র খোয়া গেছে। টাকাপয়সাও হারিয়েছে। আমরা বিষয়টি সঙ্গে সঙ্গে কিরণ আপাকে (মাহফুজা আক্তার, বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের মহিলা উইং চেয়ারম্যান) জানিয়েছি। আপা এরই মধ্যে বাংলাদেশ বিমান কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। আশা করি, এ ব্যাপারে একটা সমাধান হবে।’

জাতীয় দলের কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন বলেছেন, 'রাতে ওদের ডলার ও অর্থ চুরির বিষয়টি জানা গেছে। এটা বেশ দুঃখজনক ঘটনা।'
নিউজনাউ/একে/২০২২

X