alo
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্ব থেকে সরানো হচ্ছে চট্টগ্রামের ডিসি'কে

প্রকাশিত: ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০৪:১৩ পিএম

রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্ব থেকে সরানো হচ্ছে চট্টগ্রামের ডিসি'কে
alo

 

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী এ টি এম পেয়ারুল ইসলামের পক্ষে 'পক্ষপাতমূলক আচরণের’ অভিযোগে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমানকে (ডিসি) রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। তাকে অব্যাহতি দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার বেগম রাশেদা সুলতানা।

রবিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের কাছে তিনি এ কথা বলেন।

রাশেদা সুলতানা বলেন, ‘গত দুইদিন আগে আমরা বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে দেখেছি চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তা চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ নির্বাচনে একটি দলের চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমা নিয়ে তার বিজয় কামনা করে দলীয় নেতাদের সঙ্গে মোনাজাতে অংশ নিয়েছেন। পাশাপাশি আরও কিছু পক্ষপাতমূলক আচরণ করেছেন। যা আমাদের নজরে এসেছে। একজন জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসাবে তিনি এটা করতে পারেন না।’

তিনি বলেন, ‘মাঝে দুইদিন সরকারি ছুটি থাকায় আমরা কোনো পদক্ষেপ নিতে পারিনি। আজ আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি তাকে রিটার্নিং কর্মকর্তার পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার। শিগগিরই এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে।’

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় প্রার্থী নির্বাচিত হওয়ার বিষয়ে রাশেদা সুলতানা বলেন, ‘বিদ্রোহী যারা আসছে তারা একই দলের। দীর্ঘদিন ধরে জেলা পরিষদ নির্বাচনে নেই। তারপর প্রশাসকই আসল, এই অবস্থায় তো চলা যায় না। প্রশাসক আর নির্বাচিত প্রতিনিধির মধ্যে কিন্তু অনেক পার্থক্য আছে। মন্ত্রণালয় থেকে বলার পর আমরা নির্বাচন দিলাম। আমাদের কাজ নির্বাচনটা করা। তাই দলীয়ভাবে হচ্ছে না কি হচ্ছে সেটা দেখার দায়িত্ব আমাদের নয়। একজন দাঁড়াচ্ছে, আরেকজন দাঁড়াচ্ছেন না। কাজেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়াটা বেআইনি নয়। আবার নির্বাচন কেউ অংশ নিতে পারবে না, এমন অবস্থার তৈরি হয়েছে, তা তো নয়। আমরা চাচ্ছি সবাই নির্বাচনে আসুক। কিন্তু কেউ যদি না আসে, কেমন করে তাদের আমরা আনবো।’

ইসি কমিশনার বলেন, ‘দেশে অনেক ঘটনাই ঘটছে, তা কারও আকাঙ্ক্ষিত নয়। ছোটবেলায় আমরা দেখেছি স্থানীয় নির্বাচন দলীয় নয়। কিন্তু অলিখিতভাবে অনেক কিছু হয়ে যায়। এটা বন্ধ করা কিন্তু রাজনৈতিক দলগুলোরই কাজ। এটা নির্বাচন কমিশনের কাজ নয়। কোথাও কোনো অনিয়ম হলে এখন আমরা নির্দ্বিধায় আমাদের সিদ্ধান্ত নেবো। আওয়ামী লীগ, বিএনপি এগুলো কিন্তু আমরা আমলে নেবো না। ইতিপূর্বেও আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি।’

উল্লেখ্য, আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচনের মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ দিন ছিল গত ১৫ সেপ্টেম্বর। এদিন চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী এটিএম পেয়ারুল ইসলাম নেতাকর্মীদের নিয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিতে যান। এসময় রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান প্রার্থীর বিজয় কামনা করে দলীয় নেতাদের সঙ্গে মোনাজাতে অংশ নেন।

এক পর্যায়ে আওয়ামী লীগ প্রার্থীকে নিজের পাশে বসিয়ে আওয়ামী লীগ নেতাদের উদ্দেশ্যে বক্তব্যও রাখেন তিনি। সেই বক্তব্যে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবার যেন আওয়ামী লীগ বিজয়ী হয়, সেজন্য বিএনপি-জামায়াতেরও দোয়া করা উচিত মন্তব্য করেন।

নিউজনাউ/পিপিএন/২০২২

X