alo
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ডেঙ্গুতে মৃত্যু বাড়ছে: উদ্বিগ্ন মন্ত্রী তাজুল

প্রকাশিত: ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০৫:৩৭ পিএম

ডেঙ্গুতে মৃত্যু বাড়ছে: উদ্বিগ্ন মন্ত্রী তাজুল
alo

নিউজনাউ ডেস্ক: ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় একজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এসময়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৩৯৫ ডেঙ্গুরোগী। এ নিয়ে সারাদেশে মোট এক হাজার ৩১১ জন ডেঙ্গুরোগী হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের ইনচার্জ ডা. মো. জাহিদুল ইসলামের সই করা ডেঙ্গুবিষয়ক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বুধবার সকাল ৮টা থেকে শুরু করে বৃহস্পতিবার একই সময়ের মধ্যে সারাদেশে নতুন করে ৩৯৫ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে ২৯৪ জন ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। ঢাকার বাইরে চিকিৎসা নিচ্ছেন ১০১ জন।

এ নিয়ে বর্তমানে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে সর্বমোট ১ হাজার ৩১১ জন ভর্তি রয়েছেন। তাদের মধ্যে ঢাকার ৪৭টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন ৯৭১ জন। ঢাকার বাইরে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ৩৪০ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, চলতি বছরে ১ জানুয়ারি থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন সর্বমোট ১০ হাজার ২৩২ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন ৮ হাজার ৮৮১ জন।

এসময়ে ঢাকায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৮ হাজার ৯৫ জন ও সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৭ হাজার ১০৭ জন। ঢাকার বাইরে ভর্তি হয়েছেন ২ হাজার ১৩৭ জন এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১ হাজার ৭৭৪ জন।

এদিকে দেশে ডেঙ্গুতে মৃত্যুর পরিসংখ্যান দেখে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে এক সভা শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে মন্ত্রী এ উদ্বেগ প্রকাশ করেন। 

সারাদেশে মশাবাহিত রোগ প্রতিরোধে সিটি করপোরেশন ও অন্যান্য মন্ত্রণালয়, বিভাগ, দপ্তর ও সংস্থার পর্যালোচনার জন্য দুপুর ২টায় স্থানীয় সরকার বিভাগের সম্মেলন কক্ষে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা শুরু হয়। সভা শেষে ডেঙ্গুতে মৃত্যুর পরিসংখ্যান জানান স্থানীয় সরকার মন্ত্রী। 

অন্যদের সঙ্গে তুলনা করে আত্মতুষ্টিতে ভুগছেন কি না-  সাংবাদিকদের এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আত্মতুষ্টির বিষয় নয়। আমরা ব্যথিত, দুঃখিত ও উদ্বিগ্ন, যে কারণে আজ এখানে বসা। নইলে তো হঠাৎ করে এক মাসের ব্যবধানে আমাদের এখানে বসার দরকার ছিল না। আমরা উদ্বিগ্ন, আমাদের কাছে এটি দুঃখজনক। একজন মানুষেরও মৃত্যু কেন হবে?

তিনি বলেন, বিভিন্ন দেশের সঙ্গে আমি কমপেয়ার (তুলনা) করেছি। সিঙ্গাপুরের মতো দেশ কি চেষ্টা করে না? ভিয়েতনামের মতো দেশ কি চেষ্টা করে না? ফিলিপাইনের মতো দেশ, তাদের দেশের ইনকাম আমাদের থেকে বেশি। সে সমস্ত কারণে আমরা এ তুলনাটি করেছি।

সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, এডিস মশার ডিম দুই বছর পর্যন্ত থেকে যেতে পারে।

সিটি করপোপরেশনের সাম্প্রতিক উচ্ছেদ অভিযান প্রসঙ্গে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি বলেন, সিটি করপোরেশনগুলো মানুষের জন্য কল্যাণকর। 

হাঁটাচলার পথ এবং রাস্তার ওপরে হকারদের বসানো দোকানের বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, ১৯৯০ অথবা ১৯৯১ সাল থেকে বসে। তবে এটাকে আমরা সমর্থন করি না। ফলে মেয়র সাহেবরা এখানে উদ্যোগ নিচ্ছেন।

নিউজনাউ/এবি/২০২২

X