alo
ঢাকা, মঙ্গলবার, অক্টোবর ৪, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৮ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

হিলি বন্দর দিয়ে বেড়েছে পেঁয়াজের আমদানি

প্রকাশিত: ০৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০৫:২২ পিএম

হিলি বন্দর দিয়ে বেড়েছে পেঁয়াজের আমদানি
alo

দিনাজপুর প্রতিনিধি: দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি বেড়েছে। এতে পেঁয়াজের দাম কমেছে কেজিতে চার থেকে ছয় টাকা। দেশি পেঁয়াজের দাম বেশি হওয়ায় ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বেড়েছে বলে জানিয়েছেন পাইকারি ও খুচরা বিক্রেতারা।

হিলি স্থলবন্দরের আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান মেসার্স শোভন এন্টারপ্রাইজের প্রতিনিধি সাখাওয়াত হোসেন ও সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট নিরব ট্রেডার্সের প্রতিনিধি জাকির হোসেন জানান, এই বন্দর দিয়ে নাসিক, ইন্দোরসহ ভারতীয় বিভিন্ন জাতের পেঁয়াজ আমদানি হয়ে থাকে। তারা প্রতিদিন হিলি বন্দর দিয়ে ১০ থেকে ১৫ ট্রাক পেঁয়াজ আমদানি করে থাকেন। তবে গত বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) ৩৪ ট্রাক পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে।

এদিকে, হিলি স্থলবন্দরের পাইকারি পেঁয়াজ ব্যবসায়ী কামাল হোসেন জানান, শনিবার (৩ সেপ্টেম্বর) ভারত থেকে আমদানি করা পেঁয়াজ পাইকারি বিক্রি হচ্ছে প্রকারভেদে ১৫ থেকে ১৮ টাকা কেজি দরে। তিনদিন আগে এই পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছিল ১৯ থেকে ২৪ টাকা কেজি দরে।

হিলি বাজারের খুচরা পেঁয়াজ ব্যবসায়ী ফেরদৌস রহমান বলেন, আমরা আমদানিকারকদের কাছ থেকে পাইকারি ১৫ থেকে ১৮ টাকা কেজি দরে কিনে খুচরা প্রকারভেদে ১৭ থেকে ২০ টাকা কেজি বিক্রি করছি।

হিলি আমদানি-রপ্তানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন উর রশিদ হারুন জানান, হিলি বন্দর দিয়ে আগের চেয়ে পেঁয়াজ আমদানি বেড়েছে। আমদানিকারকরা প্রতিদিনই হিলি বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি করছেন। বেশি আমদানি হলে পেঁয়াজের দাম আরও কমবে বলে আশা করছি।

পানামা হিলি পোর্টের জনসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাফ হোসেন জানান, কয়েকদিন আগেও হিলি স্থলবন্দর দিয়ে প্রতিদিন ১০ থেকে ১৫ ট্রাক ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানি হতো। গত বৃহস্পতিবার ৩৪ ট্রাকে প্রায় ৬৮০ মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। পানামা পোর্ট কর্তৃপক্ষ আমদানিকারক-রপ্তানিকারক, সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টসহ বন্দর সংশ্লিষ্টদের সার্বিক সহযোগিতা করে যাচ্ছে।


নিউজনাউ/এসকে/২০২২ 

X