alo
ঢাকা, মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৬, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

পুলিশ হেফাজতে মৃত্যুর ৭ বছর পর হত্যা মামলার আবেদন

প্রকাশিত: ১৬ নভেম্বর, ২০২২, ০৮:২৬ পিএম

পুলিশ হেফাজতে মৃত্যুর ৭ বছর পর হত্যা মামলার আবেদন
alo

রাজশাহী ব্যুরো:  পুলিশ হেফাজতে আসামির মৃত্যুর সাত বছর পর রাজশাহীর আদালতে হত্যা মামলার আবেদন করা হয়েছে। বুধবার (১৬ নভেম্বর) মর্জিনা রহমান (৫০) নামের এক নারী তার স্বামী আইনুর রহমান মুক্তার মৃত্যুর বিচার চেয়ে রাজশাহী মহানগর দায়রা জজ আদালতে আইনজীবীর মাধ্যমে এই মামলার আবেদন জমা দিয়েছেন। মর্জিনা নগরীর বোয়ালিয়া থানার উপশহর এলাকার বাসিন্দা।

আর্জিতে যাদের নাম আছে তারা হলেন- রাজশাহী নগর পুলিশের (আরএমপি) তৎকালীন কমিশনার মো. শামসুদ্দিন, বোয়ালিয়া থানার তৎকালীন ওসি নূর হোসেন খন্দকার, নগর গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) তৎকালীন পরিদর্শক আশিকুর রহমান এবং বোয়ালিয়া থানার তৎকালীন উপপরিদর্শক (এসআই) তৌহিদুল ইসলাম।

মামলার আর্জিতে বলা হয়েছে, ২০১৫ সালের ১ জানুয়ারি মর্জিনা রহমানের স্বামী আইনুর রহমান মুক্তার বিরুদ্ধে বোয়ালিয়া থানায় একটি মামলা করে পুলিশ। ওই মামলায় ২৭ জানুয়ারি আইনুর রহমান মুক্তাকে উপশহর থেকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর তাকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করা হয়। এরপর সেদিনই তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। কারা কর্তৃপক্ষ গুরুতর আহত মুক্তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসককে মৃত ঘোষণা করেন। পরে পুলিশ স্বজনদের লাশ হস্তান্তর করলেও দাফন না হওয়া পর্যন্ত তারা পাহারায় ছিল।

বাদীর আইনজীবী মাইনুল আহসান পান্না বলেন, রাজনৈতিক মামলায় গ্রেফতারের পর মর্জিনার স্বামীকে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে বলে তিনি দাবি করছেন। তাই পুলিশ হেফাজতে মৃত্যুর আইনে তিনি মামলার আবেদন করেছেন। আদালত আবেদন গ্রহণ করেছেন, কিন্তু কোনো আদেশ দেননি। পরে আদালত এ ব্যাপারে আদেশ দেবেন বলেও জানান তিনি।


নিউজনাউ/এসএইচ/২০২২
 

X