ভারতে অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা নেয়াদের করোনা সংক্রমণ হার কম

নিউজনাউ ডেস্ক: ভারতে টিকা নেওয়ার পর করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যা বেশ কম। গতকাল বুধবার দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, “যারা সেরাম ইনস্টিটিউটে উৎপাদিত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনার টিকা কোভিশিল্ডের একটি ডোজ নিয়েছেন, তাদের মধ্যে দশমিক শূন্য ২ শতাংশ মানুষের নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে। আর যারা এই টিকার দুটি ডোজ নিয়েছেন, তাদের মধ্যে এ হার আরও কম, দশমিক শূন্য ৩ শতাংশ। ভারত বায়োটেকের তৈরি কোভ্যাক্সিন গ্রহণকারীদেরও সংক্রমণের হার কম।”

বাংলাদেশেও অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার উদ্ভাবিত ও সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি করোনার টিকা কোভিশিল্ডের প্রয়োগ চলছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী গত মঙ্গলবার পর্যন্ত দেশে ৫৭ লাখের বেশি মানুষকে প্রথম ডোজের টিকা দেওয়া হয়েছে। আর ১৬ লাখের বেশি মানুষ দ্বিতীয় ডোজের টিকা পেয়েছেন।

ভারতের সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়, ভারত সরকারের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, “দেশটিতে ১০ কোটি ৩ লাখ ২ হাজার ৭৪৫ জন অক্সফোর্ডের টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন। টিকার প্রথম ডোজ নেওয়ার পর তাঁদের মধ্যে নতুন করে ১৭ হাজার ১৪৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে, যা প্রথম ডোজ টিকাগ্রহীতার দশমিক শূন্য ২ শতাংশ। অন্যদিকে, ভারতে এই টিকা দুটি ডোজ নিয়েছেন ১ কোটি ৫৭ লাখ ৩২ হাজার ৭৪৫ জন। টিকা নেওয়ার পর তাঁদের মধ্যে ৫ হাজার ১৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শতাংশের হিসাবে এ হার দশমিক শূন্য ৩।”

ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিকেল রিসার্চের মহাপরিচালক বলরাম ভরগাভা বলেন,”প্রতি ১০ হাজার টিকাগ্রহীতার মধ্যে ২ থেকে ৪ জনের নতুন করে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এই সংখ্যা খুবই নগণ্য। তাই আতঙ্কিত হওয়ার মতো কিছু নেই।”

ভারতের নিজস্ব টিকা কোভ্যাক্সিন। ভারত বায়োটেক করোনার এ টিকা উদ্ভাবন করেছে। এখন পর্যন্ত কোভ্যাক্সিনের প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৯৩ লাখ ৫৬ হাজার ৪৩৬ জন। আর দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ১৭ লাখ ৩৭ হাজার ১৭৮ জন। ভারত সরকারের হিসাব অনুযায়ী, “কোভ্যাক্সিনের প্রথম ডোজ নেওয়ার পর ৪ হাজার ২০৮ জনের (দশমিক শূন্য ৪ শতাংশ) নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে। আর দুটি ডোজ নেওয়ার পর করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে ৬৯৫ জনের। এ ক্ষেত্রেও শনাক্তের হার দশমিক শূন্য ৪ শতাংশ।”

ভারতে করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ চলছে। প্রতি দিনই দেশটিতে রেকর্ড ছাড়াচ্ছে মৃত্যু আর নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ভারত সরকার টিকার ওপর জোর দিয়েছে । তবে টিকা নেওয়ার পরও অনেকের করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। টিকার কার্যকারিতা নিয়ে অনেকের মনেই প্রশ্ন জেগে উঠছে।

নিউজনাউ/এসজেএম/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
মন্তব্য
Loading...
%d bloggers like this: