রোজা ও লকডাউনের অজুহাতে বাড়ছে নিত্যপণ্য-ইফতার সামগ্রীর দাম

নিউজনাউ ডেস্ক : রোজাকে কেন্দ্র করে লকডাউনে এক সপ্তাহের ব্যবধানে পেঁয়াজ ,আদা্‌ বেগুন, লেবু, চিনি, বেসন, ছোলা, চিড়া ও মুড়িসহ দাম বেড়েছে সবধরনের ইফতার সামগ্রীর। এতে সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছেন সাধারণ জনগন।

কাওরান বাজার, শান্তিনগর, রামপুরা বাজার ঘুরে দেখা যায়, নগরীর বিভিন্ন খুচরা বাজারে প্রতিকেজি বেগুন ৮০-১০০ টাকা, খিরা ৫৫-৬০ টাকা, কাঁচামরিচ ৬০-৭০ টাকা, আলু ২৫ টাকা, প্রতিকেজি বেসন ১০০ টাকা, ছোলা ১১৫ টাকা, ছোলা ৭৫ টাকা, চিড়া ৬০ টাকা, মুড়ি ৮৫ টাকা, সাধারণ খেজুর ২৫০-৩০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

মিনিকেট ৬৫, নাজিরশাল ৭০, আটাশ চাল ৫৫, সয়াবিন তেল ১৪০ টাকা বিক্রি হচ্ছে।

ক্রেতারা জানালেন , রমজান মাসের শুরুতেই ইফতার সামগ্রীর দাম অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেয়েছে। লকডাউন নিয়ে আমাদের মত নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষ অর্থনৈতিকভাবে এমনিতেই বিপদে আছি অথচ এ সময় ইফতার সামগ্রীর দাম বেড়েই চলেছে।

এদিকে বিক্রেতাদের ভাষ্য, লকডাউনে দূরবর্তী জায়গা থেকে সামগ্রী আনা কষ্টকর এবং ব্যয়বহুল আর তাই দাম কিছুটা বেড়েছে, বেশি বাড়েনি সব কিছুই কেজি প্রতি ৫-১০ টাকা বেড়েছে।

বাজারে সবজির দাম বেড়েই চলছে। বরবটি ৫০, টমেটো ৩৫ থেকে ৪০, পটল ৪০ গাজর ৩৫ থেকে ৪০, করল্লা ৫০ থেকে ৬০। শসা ৬০ থেকে ৭০, কচি লাউ ৪০ থেকে ৪৫ টাকা, মুলা ৪০টাকা, কাঁচা আম ৯০ থেকে ৯৫, পেঁয়াজ ৪০ থেকে ৫০, রসুন ১২০ থেকে ২৫, ঢ্যাড়স ৪০ থেকে ৪৫ টাকা।

পোল্ট্রি মুরগি ১৩০ থেকে ১৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। প্রতি কেজিতে ২০ টাকা দাম কমে বিক্রি হচ্ছে সোনালি (কক) মুরগি ২৭০ থেকে ২৮০ টাকা। লেয়ার মুরগি কেজি ২১০ থেকে ২২০ টাকা।এক ডজন লাল ডিম বিক্রি হচ্ছে ৮৫ টাকায়। হাঁসের ডিমের দাম কমে ডজন এখন ১৩৫ টাকা। দেশি মুরগির ডিমের ডজন বিক্রি হচ্ছে ১৮০ টাকা।

প্রসঙ্গত, মাত্র কয়েক দিন আগে প্রতিকেজি বেগুন ৩০ টাকা, খিরা ২৫ টাকা, আলু ২০ টাকা, প্রতিকেজি বেসন ৫০ টাকা, খেসারি ডাল ৯০ থেকে ৯৫ টাকা, ছোলা ৬৫ থেকে ৭০ টাকা, চিড়া ৫৫ টাকা, মুড়ি ৭০ টাকা, খেজুর ১৫০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে।

নিউজনাউ/এস এইচ/২০২১

 

 

 

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
মন্তব্য
Loading...
%d bloggers like this: