আদালত ছাড়াও বিবাহ বিচ্ছেদ ভারতীয় মুসলিম নারীদের

নিউজনাউ ডেস্ক: মুসলিম নারীরা আদালতের বাইরেও যেন তাদের বিবাহ বিচ্ছেদের দাবি পেশ করতে পারেন এ জন্য ভারতের কেরালা হাইকোর্ট এক ঐতিহাসিক রায়ে তাদের সেই অধিকার দিয়েছে। এর মাধ্যমে খারিজ হয়ে গেছে প্রায় পাঁচ দশকের পুরনো একটি রায়, যাতে বলা হয়েছিল মুসলিম নারীরা শুধু কোর্টের মাধ্যমেই তাদের স্বামীকে তালাক দিতে পারবেন।

এই রায়কে স্বাগত জানাচ্ছেন যারা মুসলিম নারীদের অধিকার আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত তারা । তবে কেরালার ইন্ডিয়ান মুসলীম লীগ নেতৃত্ব বলেছেন, তারা এই রায়কে মুসলিম দেওয়ানি আইনে আদালতের অবাঞ্ছিত হস্তক্ষেপ বলেই মনে করেন।১৯৭২ সালে কেরালা হাইকোর্টে ‘কে সি মঈন বনাম নাফিসা ও অন্যান্যরা’, এই মামলায় একটি সিঙ্গল বেঞ্চ রায় দিয়েছিল কোনও পরিস্থিতিতেই একটি মুসলিম বিবাহ শুধু স্ত্রী চাইলেই ভেঙে দেওয়া যাবে না।

একমাত্র ব্যতিক্রম হবে মুসলিম ম্যারেজ অ্যাক্টের কয়েকটি ধারা – যার অর্থ দাঁড়ায়, কোনো মুসলিম নারী ডিভোর্স চাইলে তাকে কোর্টে যেতেই হবে। এই পটভূমিতে গত পঞ্চাশ বছরে দক্ষিণ ভারতের এই রাজ্যটিতে পারিবারিক আদালতে অজস্র মামলা হয়েছে।

এখন তার অনেকগুলোকে একত্র করে হাইকোর্টে বিচারপতি এ মোহাম্মদ মুস্তাক ও সি এস ডায়াসের ডিভিশন বেঞ্চ রায় দিয়েছে – পবিত্র কোরআন শরিফ স্বামী ও স্ত্রী উভয়কেই বিচ্ছেদ চাওয়ার সমান অধিকার দেয়, অতএব একজন স্ত্রী তালাক দিতে চাইলে তাকে কোর্টেই যেতে হবে এমন কোনো বাধ্যবাধকতা নেই।

কেরালা হাইকোর্টের সাম্প্রতিক রায় মুসলিম নারীদেরও একই ধরনের অধিকার দেবে বলে তার বিশ্বাস, ডিভোর্স চাইলেই তাদের মামলা-মোকাদ্দমার ঝক্কিতে পড়তে হবে না।

নিউজনাউ/এফএস/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
মন্তব্য
Loading...
%d bloggers like this: