হিটশকে বার্ষিক উৎপাদন কমবে ১ লাখ টন

নিউজনাউ ডেস্ক: অনাকাঙ্খিত হিটশকে হাওর এলাকার ৬৮ হাজার ১২৩ হেক্টর জমির বোরো ধান নষ্ট হয়ে গেছে। এর ফলে চলতি বছর মোট উৎপাদন কমবে এক লাখ টন।

কৃষি মন্ত্রণালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। হিটশকের ক্ষয়ক্ষতি নিয়ে মন্ত্রণালয়ের করা চূড়ান্ত প্রতিবেদনে আরো দেখা গেছে, ৩৬টি জেলার ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া এই হিটশকে ধানের পাশাপাশি ভুট্টা, সবজি, চীনাবাদাম, সূর্যমুখী ও কলার ফলন নষ্ট হয়েছে।

প্রসঙ্গত, অতিরিক্ত গরমে মানুষ যেমন হিটস্ট্রোক করে, তীব্র দাবদাহে ধানগাছও এমনভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়, যেটাকে হিটশক বা হিট ইনজুরি বলে। গত ৪ এপ্রিল দেশের বিভিন্ন জেলায় বোরো ধানের ক্ষতি হয়েছে এ হিটশকে। এটিকে কৃষিতে জলবায়ু পরিবর্তনের নতুন চ্যালেঞ্জ বলে দেখছেন ধান গবেষকরা।

কৃষি মন্ত্রণালয়ের তথ্য আরও বলছে, ধানের পাশাপাশি ভুট্টা, সবজি, চীনাবাদাম, সূর্যমুখী ও কলার ফলন নষ্ট হয়েছে। সব মিলে টাকার অংকে মোট ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩৩৪ কোটি টাকার বেশি। এরমধ্যে বোরো ধানের ক্ষতি হয়েছে ৩২৮ কোটি টাকার। এরপর প্রায় ৪ কোটি টাকার ভুট্টা নষ্ট হয়েছে। এতে ৩ লাখ ১০ হাজার কৃষক সরাসরি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের কর্মকর্তারা বলছেন, সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে বোরো ধানের। এরপরই ভুট্টা। আর সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা নেত্রকোনা ও কিশোরগঞ্জের হাওর এলাকা এবং গোপালগঞ্জ, কুষ্টিয়া, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ।

এর আগে হিটশকের পরপরই কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর বলছে, পুরোপুরি ক্ষতির হিসাব নিরূপণ করা না গেলেও হিটশকে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলোতে ৪৮ হাজার হেক্টর জমি বোরো ধান আক্রান্ত হয়েছে। এরমধ্যে ২০ থেকে ২৫ শতাংশ আবাদের ক্ষতি হয়েছে। সে হিসাবে ১০ থেকে ১২ হাজার হেক্টর জমির ধান সম্পূর্ণ নষ্ট হতে পারে বলে প্রাথমিক আশঙ্কা করা হচ্ছে।

নিউজনাউ/এসএ/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
মন্তব্য
Loading...
%d bloggers like this: