অ্যাপ বন্ধ; চুক্তিতে রাইড শেয়ারিং

নিউজনাউ ডেস্ক: করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে গতকাল থেকে সারাদেশে লকডাউন ঘোষণা করে বিধি-নিষেধ আরোপ করে সরকার। এতে নগরীতে সব ধরনের গণপরিবহন বন্ধ রয়েছে। ফলে অফিসগামী যাত্রীরা অনেকটা বিপাকে পড়েন। সেই সাথে রাইড শেয়ারিং কোম্পানি গুলোও বন্ধ করেছে তাদের সেবা।

তবে, কোম্পানি তাদের সেবা বন্ধ রাখলেও থেমে নেই মোটরবাইকে যাত্রী পরিবহন। এ সুযোগেই অ্যাপের পরিবর্তে এখন চুক্তিতে চলছে যাত্রী পারাপার।

রাজধানীর বিভিন্ন মোড় ও অলি-গলিতে মোটরসাইকেল দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে।

রাজধানীর ধানমন্ডিতে দারিয়ে থাকা এক চালক বলেন বলেন, রিকশায় দুজন চলতে পারে। সিএনজি চলতে পারে। তাহলে মোটরবাইক চলতে পারবে না কেন? রিকশা-সিএনজি থেকে তো মোটরবাইক আরও নিরাপদ। এখানে কেউ মুখোমুখি বসে না।

তিনি আরও বলেন, অফিস আদালত, বই মেলা সবই খোলা। দোকানপাটও কমবেশি খোলা। বন্ধ শুধু রাইড শেয়ারিং অ্যাপ। তাহলে মানুষ চলাচল করবে কীভাবে? অ্যাপ চলে না তাতে কী হয়েছে? এখন মানুষ প্রয়োজনেই আমাদেরকে খোঁজে। সে কারণে আমরা রাস্তায় এখন কন্ট্রাকে যাত্রী বহন করি।

তবে সাধারণ যাত্রীরা অভিযোগ, অ্যাপের চেয়ে খ্যাপের মাধ্যমে মোটরবাইক চালকরা কয়েকগুণ বেশি টাকা আদায় করছে। তাছাড়া গণপরিবহন বন্ধের সুযোগও তারা নিচ্ছেন। এতে বাধ্য হয়েই গন্তব্যে পৌঁছার কারণে তাদের দাবিকৃত ভাড়াই পরিশোধ করতে হচ্ছে।

এদিকে সকাল থেকে নগরীর বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে অবস্থানরত ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা মোটরবাইকে দুইজন পরিবহন হতে দেখলেই মামলা দিচ্ছেন। এমতাবস্থায় গুরুত্বপূর্ণ ট্রাফিক সিগন্যালগুলো এড়িয়ে চলার চেষ্টা করেন মোটরবাইক চালকরা।

নিউজনাউ/টিএন/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
মন্তব্য
Loading...
%d bloggers like this: