বিষন্নতায় খেতে পারেন ডার্ক চকলেট

নিউজনাউ ডেস্ক: ডার্ক চকলেটে প্রচুর পরিমাণে সক্রিয় জৈব উপাদান রয়েছে, যা অ্যান্টি–অক্সিডেন্ট এর সাথে পলিফেনল ,ফ্যাভানল, ক্যাটেচিন আছে যা মন ভালো করতে সাহায্য করে। যা বিষণ্ণতা ও দুশ্চিন্তা দূর করে মুড ভালো করে দেয়।

চকলেট খেলে প্রাকৃতিকভাবেই আমাদের শরীরে সেরাটনিনের মাত্রা বৃদ্ধি পায়। এই সেরাটনিনই আমাদের মস্তিষ্কে Good Feeling এর বার্তা পাঠায়।

এই চকলেটে উপকারী অনেক ফল যেমন সব ধরনের বেরি ও বেদানার থেকেও এতে বেশি পরিমাণ এন্টি অক্সিডেন্ট পাওয়া যায়। কিছু গবেষণায় দেখা গেছে চকলেটের সাথে দুধ মেশালে চকলেটে থাকা এন্টি অক্সিডেন্টগুলো শরীরে শোষিত হয় না। তাই চকলেট থেকে উপকার পেতে ডার্ক চকলেট উৎকৃষ্ট উপাদান।

নানা গবেষণায় দেখা গেছে ডার্ক চকলেট রক্তে চিনি ও কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা রাখে। চকলেটে থাকা এন্টিঅক্সিডেন্টগুলোই এলডিএল বা ব্যাড কোলেস্টেরল ও শরীরে ইনসুলিনের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে।

এই চকলেটে কোকোয়া ফ্লাভিনয়েডে ভরপুর। চকলেট যেহেতু কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে তাই এটা হৃদরোগের ঝুঁকিও কমায়। বেশকিছু গবেষণায় দেখা গেছে সপ্তাহে এক থেকে দুইবার ডার্ক চকলেট খেলে তা হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে অনেকাংশেই সাহায্য করে। দিনে এক টুকরো ডার্ক চকলেট স্ট্রোকের ঝুঁকিও হ্রাস করে।

ডার্ক চকলেট আমাদের মস্তিষ্কের সক্ষমতা বাড়ায়। নিয়মিত চকলেট খেলে আমাদের শেখার সক্ষমতা বাড়ে। এটা দীর্ঘস্থায়ি স্মৃতি ও ক্ষণস্থায়ী স্মৃতি দুটোই সংরক্ষণে সাহায্য করে।
আর তাই নানা গুণের কারণে ডার্ক চকলেটকে বলা হয় সুপার ফুড।

নিউজনাউ/এস এইচ/ ২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
মন্তব্য
Loading...
%d bloggers like this: