করোনায় আয় কমেছে ৬২% শ্রমিকের

নিউজনাউ ডেস্ক: কোভিডের প্রভাবে কর্মজীবী মানুষের আয় কমেছে। অনেকে কাজ হারিয়েছেন। সাধারণ ছুটির মধ্যে শ্রমজীবী মানুষের বড় একটি অংশ গ্রামে ফিরে যেতে বাধ্য হন। তবে তাদের বেশির ভাগই ২০২০ সালের শেষ নাগাদ শহরে ফিরে এসেছেন।

এই প্রসঙ্গে পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক আহসান এইচ মনসুর বলেন, গ্রাম থেকে মানুষ কাজের সন্ধানে শহরে আসবে, সেটাই স্বাভাবিক। গ্রামে তাদের কর্মসংস্থান হবে না। শহরে আসতেই হবে। সে জন্য এখন বিনিয়োগ বাড়াতে হবে। নতুন বিনিয়োগ না হলে এই মানুষদের কীভাবে জায়গা দেওয়া সম্ভব। বেকারত্ব এমনিতেই বড় সমস্যা। তার সঙ্গে নতুন আরো মানুষ শহরে আসবে। ফলে অর্থনীতিতে বড় চাপ পড়বে।

জরিপে আরো জানা গেছে, ২০ শতাংশ প্রবাসী শ্রমিক ২০২০ সালের মার্চ-ডিসেম্বর সময়ের মধ্যে কাজ হারিয়েছেন। প্রবাসী শ্রমিকদের মধ্যে ৫ শতাংশ বিভিন্ন কারণে দেশে ফিরে এসেছেন। ১ দশমিক ৭ শতাংশ জানিয়েছেন, তারা ২০২০ সালের মার্চ-ডিসেম্বর মাসে সাময়িকভাবে কাজ হারিয়েছিলেন। ৫ দশমিক ৪ শতাংশ জানিয়েছেন, তারা পেশা পরিবর্তন করেছেন।

এ প্রসঙ্গে সানেমের নির্বাহী পরিচালক সেলিম রায়হান মনে করেন, সরকারের গৃহীত নীতি শুধু পণ্য ও সেবা বাজারকেন্দ্রিক। পুঁজিবাজার বা শ্রমবাজারের পুনরুদ্ধারের জন্য নীতি নেই বললেই চলে, থাকলেও তেমন দৃষ্টিগ্রাহ্য নয়। পণ্য ও সেবা এবং পুঁজি ও শ্রমবাজার একই সঙ্গে গুরুত্ব না পেলে পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়া তেমন একটা গতি পাবে না। তার পরামর্শ, নীতি প্রণয়নের সময় অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতের বিশাল কর্মী বাহিনীর কথাও মাথায় রাখতে হবে।

জরিপের বিভিন্ন খাত, অঞ্চল, নারী-পুরুষ, কাজের ধরনভিত্তিক তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে। আলোচকেরা এই দিকটির প্রশংসা করেন। দেখা গেছে, জাতীয় পর্যায়ে এখনো ৭ দশমিক ৮৮ শতাংশ মজুরি শ্রমিক কাজ হারানোর পর এখনো কাজে ফিরতে পারেননি। এর মধ্যে শহরাঞ্চলের শ্রমিকের অনুপাত ৮ দশমিক ৮৬ শতাংশ এবং গ্রামাঞ্চলের ৭ দশমিক ৩৯ শতাংশ।বিভাগওয়ারি তথ্যে দেখা যায়, এখনো কাজে ফিরতে না পারা শ্রমিকের সংখ্যা বরিশালে সর্বাধিক—১২ দশমিক ৯৪ শতাংশ। সর্বনিম্ন খুলনায় ৩ দশমিক ২৩ শতাংশ, যেখানে ঢাকায় তা ৭ দশমিক ৭১ শতাংশ।

নিউজনাউ/টিপিএম/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
মন্তব্য
Loading...
%d bloggers like this: