হত্যার মত্ত মিয়ানমার সেনাবাহিনী: অ্যামনেস্টি

নিউজনাউ ডেস্ক: অভ্যুত্থানবিরোধী শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী প্রাণঘাতী কৌশল এবং যুদ্ধক্ষেত্রে ব্যবহৃত অস্ত্র প্রয়োগ করছে বলে অভিযোগ করেছে মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।

গত কয়েক সপ্তাহের ভিডিও এবং ছবির প্রমাণ বিশ্লেষণ করে বৃহস্পতিবার লন্ডনভিত্তিক সংস্থাটি বলছে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী হত্যার নেশায় মত্ত হয়ে উঠেছে। দেশটির সহিংসতা থামাতে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতিও আহ্বান জানিয়েছে তারা। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ৫৫টি ভিডিও ক্লিপ থেকে বিক্ষোভকারীদের ‘সংঘবদ্ধভাবে এবং উদ্দেশ্যমূলকভাবে হত্যার’ প্রমাণ পাওয়া গেছে।

সংস্থাটির ক্রাইসিস রেসপন্স পরিচালক জোয়ান্নে মেরিনার বলেন, ‘মিয়ানমার সেনাবাহিনীর এসব কৌশল নতুন নয় কিন্তু হাতের হত্যার উন্মত্ততা আগে কখনওই দুনিয়ার মানুষ সরাসরি সম্প্রচারে দেখতে পারেনি।’

অ্যামনেস্টির ক্রাইসিস এভিডেন্স ল্যাবে ৫০টিরও বেশি ভিডিও যাচাই করা হয়েছে। চলমান অভিযানের এসব ভিডিও ফুটেজ থেকে নিশ্চিত হওয়া গেছে নিরাপত্তা বাহিনী পরিকল্পনা মাফিক, পদ্ধতিগত কৌশল বাস্তবায়ন করছে। মিয়ানমারের সেনাবাহিনী ‘ক্রমবর্ধমানভাবে যেসব অস্ত্র ব্যবহার করছে তা শুধু যুদ্ধক্ষেত্রের জন্য যথাযথ, পুলিশি কার্যক্রমের জন্য নয়।’

ভিডিওতে ধরা পড়া মিয়ানমারের নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের বারবারই বেপরোয়া আচরণ করতে দেখা গেছে। এসব আচরণের মধ্যে রয়েছে, ঘিরে রাখা এলাকায় নির্বিচারে তাজা গুলির ব্যবহার।

উল্লেখ্য, মিয়ানমার থেকে পালিয়ে ভারতে আশ্রয় নেওয়া পুলিশ সদস্যরা বুধবার জানিয়েছেন তাদেরকে বিক্ষোভকারীদের ওপর নির্বিচার গুলি ছোড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। মৃত্যু নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত গুলি চালিয়ে যেতে বলা হয়েছিল। রয়টার্সকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ওই পুলিশ সদস্যরা দাবি করেছেন, এছাড়া বিকল্প কোনও পথ তাদের সামনে খোলা ছিল না।

নিউজনাউ/আরবি/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
মন্তব্য
Loading...
%d bloggers like this: