৬০ ফুটের সমান চারতলা থেকে লাফিয়ে জেল পালান আসামী রুবেল

চট্টগ্রাম ব্যুরো: প্রথমে প্রায় ৬০ ফুট উঁচু চারতলা ভবন থেকে লাফ দেন ফরহাদ হোসেন রুবেল। এরপর ১০ ফুটের আরেকটি দেওয়াল টপকিয়ে চট্টগাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে পালিয়ে যান খুনের মামলায় কারাবন্দি এ আসামী। তবে এতকিছুর পরও তার শেষ রক্ষা হলো না। জেল পালানোর চার দিনের মাথায় নরসিংদীর রায়পুর থানার আদিয়াবাদ শেরপুর কান্দাপাড়া চরাঞ্চল এলাকায় ফুফুর বাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে কোতোয়ালী থানা পুলিশ।

মঙ্গলবার (৯ মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় নগরীর কোতোয়ালি থানায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ বর্ণনা দেন অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) পলাশ কান্তি নাথ।

তবে এতো উঁচু থেকে লাফানোর পরও অনেকটা অক্ষত রুবেল চট্টগ্রাম রেল স্টেশনে যায়। পরে সকাল ১০ টার ট্রেনে নরসিংদীর রায়পুরায় তার ফুফুর বাসায় আত্মগোপন করে। তার হাত-পা কিছুই ভাঙ্গেনি। হয় নি বড় কোন অঙ্গহানি।

উপস্থিত সাংবাদিকদের পলাশ কান্তি নাথ জানান, রুবেল একজন দূধর্ষ আসামি। গত ৬ মার্চ ভোর পৌনে ৫ টায় কারগারে চতুর্থ তলায় কর্ণফুলী (পানিশমেন্ট) ওয়ার্ড থেকে নেমে পাশ্ববর্তী নির্মানাধীন ভবনের চার তলায় উঠে। ওই ভবনের ছাদ থেকে সাড়ে ৫টার দিকে লাফ দিয়ে কারাগারের সীমানা প্রাচীরের বাইরে গিয়ে পড়ে।

পলাশ কান্তি নাথ আরো জানান, আসামি রুবেল শারীরিকভাবে সক্ষম একজন ব্যক্তি। তার মনোবল প্রচুর স্ট্রং। চার তলা ভবন থেকে লাফিয়ে পড়ার পর সে নিজেই পায়ে হেঁটে চট্টগ্রাম রেল স্টেশনে যায়। বর্তমানে সে একটু অসুস্থ। প্রকৃত ঘটনা উদঘাটনে আমরা তার রিমান্ড চাইবো। রিমান্ড শেষে বিস্তারিত জানা যাবে।

রুবেল গত ৯ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রাম নগরীর সদরঘাট থানার একটি হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে আসেন। ৬ মার্চ ভোর সোয়া ৫টায় কারাগার থেকে পালিয়ে যায় রুবেল। পরে সিনিয়র জেল সুপার এ বিষয়ে কোতোয়ালি থানায় জিডি করেন।

এ ঘটনায় কারা কর্তৃপক্ষ তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেন। কমিটিতে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে এক সময় সিনিয়র জেলসুপার হিসেবে দায়িত্ব পালন করা ডিআইজি ছগীর মিয়াকে আহ্বায়ক করা হয়।

একই ঘটনায় চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মো. মমিনুর রহমানও তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন।

রুবেলের পালানোর ঘটনায় দায়িত্ব অবহেলার অভিযোগে জেলার রফিকুল ইসলামসহ এক ডেপুটি জেলারকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। এ ছাড়া কারারক্ষী নাজিম উদ্দিন ও সহকারী কারারক্ষী ইউনুস মিয়া সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন। সহকারী প্রধান কারারক্ষী কামাল হায়দারের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করা হয়েছে।

নিউজনাউ/পিপিএন/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
মন্তব্য
Loading...
%d bloggers like this: