১৫ আগস্টের দায় তাহেরের: সিরাজুল আলম খান

নিউজনাউ ডেস্ক: জাসদ এবং ১৫ আগস্ট। অনেক পুরনো একটি সীমকরণ, কখনো মিমাংসিত, কখনো নয়। এ প্রজন্ম ইতিহাস খুব ভালো জানে না। তাই ইতিহাস তাদের কাছে এক অচেনা জগত। ১৫ আগস্ট ১৯৭৫ বাঙালি জাতির ইতিহাসে এক ক্ষতচিহ্ন। তার সাক্ষী কেবল পুরনো মানুষগুলো। ১৫ আগস্টের সাথে জাসদের রয়েছে রহস্যঘেরা এক অভূতপূর্ব সম্পর্ক। এ বিষয়ে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক সিরাজুল আলম খান গণমাধ্যমকে বিশেষ সাক্ষাৎকার দিয়েছেন। দৈনিক মানব জমিন প্রকাশিত এ সাক্ষাৎকারটি নিউজনাউয়ের পাঠকের জন্য হুবহু তুলে ধরা হলো:

একটা প্রশ্ন কিন্তু উঠছে। জাসদ এবং ১৫ আগস্ট। এখন রেকর্ডে যেসব কথা আসছে, কর্নেল তাহের ওয়াজ ভেরি মাচ আ পার্ট অব ফিফটিনথ অগাস্ট। হি হ্যাড অল দ্য লিয়াজোঁ উইথ ডালিম, রশিদ। এবং ওই সময় উনি মুভও করেছেন জিয়াকে প্রেসিডেন্ট বানানোর জন্য। এ জিনিসগুলো এখন আসতেছে। এবং নূর-টুর এদের সবার সঙ্গে তার যোগাযোগ ছিল বিকজ অব হিজ ওল্ড অ্যাসোসিয়েশন। আবার একইসঙ্গে তিনি সেনাবাহিনীর কাছে জাসদের রিপ্রেজেন্টেটিভ।
কর্নেল তাহেরকে জাসদ যদি ক্যারি করে, তাহলে ১৫ আগস্টের একটা…

লেখক, গবেষক মহিউদ্দিন আহমদ এ প্রশ্ন রাখেন সিরাজুল আলম খানের কাছে। জবাবে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম প্রধান সংগঠক, এদেশের ইতিহাসের অন্যতম আলোচিত্র চরিত্র সিরাজুল আলম খান বলেন, ইন্টারপ্রিটেশন?

মহি: একটা লায়বাবিলিটি চলে আসে।
সিরাজ: চলে আসে?

মহি: অবভিয়াসলি চলে আসে।
সিরাজ: জাসদের ওপর না আসলেও কর্নেল তাহেরের ওপর আসে।

মহি: জাসদের ওপর আসে, যেহেতু জাসদ তাহেরকে ওউন করেছে।
সিরাজ: হতে পারে। একজনের একটা ইনডিভিজুয়াল রোল থাকতে পারে না?

মহিউদ্দিন আহমদের লেখা সদ্য প্রকাশিত ‘ প্রতিনায়ক: সিরাজুল আলম খান’ শীর্ষক বইতে এই বিবরণ পাওয়া যায়। বইটি প্রকাশ করেছে প্রথমা। তাদের আলাপ এভাবে এগুতে থাকে-

মহি: কর্নেল তাহেরতো সিরাজ সিকদারের সর্বহারা পার্টি করত।
সিরাজ: সেটাইতো বলছি। আলাদা রোল হতে পারে। আলাদা আইডেন্টিটি থাকতে পারে।

মহি: ইভেন তাহের যেদিন অ্যারেস্ট হন, চারজন একসঙ্গে অ্যারেস্ট হয়েছিলেন-তাহের…
সিরাজ: এস এম হল থেকে, হাউস টিউটরের বাসা থেকে।

মহি: হ্যাঁ। মোস্তফা সরোয়ার (বাদল) ছিলেন হাউস টিউটর। যেহেতু তার ওখানে মিটিং হচ্ছিল, সেখান থেকে তাহের অ্যারেস্ট হলেন। বাদল ভাইও অ্যারেস্ট হলেন। তার সঙ্গে সৈনিক সংস্থার জোবায়ের আনসারি ছিলেন। তিনি পরে রাজসাক্ষী হয়েছিলেন। তিনিও অ্যারেস্ট হন। আরেকজন যিনি অ্যারেস্ট হয়েছিলেন তিনি সর্বহারা পার্টির লোক। ফাররোখ আহমদ নাম। তিন বছর জেলে ছিলেন। তার মানে ওখানেও তার সঙ্গে সর্বহারা পার্টির লোক ছিল। জিনিসটা খুব…
সিরাজ: সিম্পল ইকুয়েশন।

মহি: সিম্পল না। বেশ জটিল। উনি অনেক দিকে হাত দিয়েছিলেন। কিন্তু পরে জিয়া তো জাসদকেই টার্গেট করল। এজন্যই আমি বলি, ১৫ আগস্টে জাসদের কোনো ভূমিকা নাই- এটা ১৫ আগস্ট থেকে নভেম্বরের সেকেন্ড উইক পর্যন্ত, জিয়ার সঙ্গে হানিমুন পিরিয়ড শেষ হয়ে যাওয়ার আগ পর্যন্ত জাসদের যে সমস্ত লিটারেচার-সেখানে ১৫ আগস্ট সম্পর্কে কোনো ক্রিটিক্যাল কথাবার্তা নাই।

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
মন্তব্য
Loading...
%d bloggers like this: