‘এই সম্মান চট্টগ্রামবাসীর’

নিউজনাউ ডেস্ক: গৌরবোজ্জল ও কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরুপ মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক চট্টগ্রামের অভিসংবাদিত নেতা বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য প্রয়াত আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবুকে ‘স্বাধীনতা পুরষ্কার ২০২১’ প্রদান করেছে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। এতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন তার জ্যোষ্ঠপুত্র, ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপি।

এ বিষয়ে ভূমিমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর ডাকে জীবনবাজি রেখে যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিলেন তার পিতা আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু। কোনো স্বীকৃতির আশায় তারা সেদিন যুদ্ধে যাননি। দেশ ও জাতিকে পরাধীনতার শৃংখল থেকে মুক্ত করাই ছিল তাদের লক্ষ্য। আর বঙ্গবন্ধু ছিল তাদের ধ্যান-জ্ঞান। বঙ্গবন্ধুর ডাকে স্বাধীনতা অর্জনের ৫০তম বর্ষে এই সম্মান প্রাপ্তি অনেক বেশি আনন্দের বলে তিনি মন্তব্য করেন।

তিনি আরো বলেন, আখতারুজ্জামান বাবুর স্বাধীনতা পুরস্কার প্রাপ্তি শুধু তার পিতা বা একটি পরিবারের সম্মান নয়। এই সম্মান পুরো আনোয়ারা-কর্ণফুলীবাসীর। এই সম্মান চট্টগ্রামবাসীর। সুখে দুঃখে এলাকাবাসীর পাশে থেকে এই সম্মানের প্রতিদান দিতে সচেষ্ট থাকবেন বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, আনোয়ারা-কর্ণফুলী আসনে একাধিকবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু। জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত তিনি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। দলের দুঃসময়ে আখতারুজ্জামান বাবু গুরত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। রাজনীতির বাইরে শিল্পোদ্যোক্তা হিসাবেও পরিচিতি ছিল তাঁর।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধ চলাকালীন সময়ে আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের আহ্বানে মুক্তিযুদ্ধাদের সংগঠিত করেন। এসময় বাবু’র চট্টগ্রামস্থ নগরীর পাথরঘাটা বাস ভবনকে স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযোদ্ধাদের অফিস হিসেবে ব্যবহার করেন। স্বাধীনতার ঘোষণা পত্রও তাঁর বাস ভবন থেকে ফটোকপি করে সারা বিশ্বে প্রচার করেন। ঐ ফটোকপির মেশিন আনোয়ারা সরকারি কলেজে এখনো সংরক্ষিত রয়েছেন। ২০১২ সারের ৪ নভেম্বর চিকিৎসাধীন অবস্থায় সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে তিনি ইন্তেকাল করেন।

নিউজনাউ/এবিএ/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
মন্তব্য
Loading...
%d bloggers like this: