বাড়ছে জ্বালানি সংকট, ৩০ সালের ব্যয় ২০ মিলিয়ন ডলার

নিউজনাউ ডেস্ক: ২০৩০ সালে জ্বালানি আমদানি ব্যয় দাঁড়াবে ২০ মিলিয়ন মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এই অর্থের উৎস কী হতে পারে এমন ভাবনা দেশের অনেক স্টেকহোল্ডার, গবেষক ও সচেতন নাগরিরেক। বাংলাদেশের জ্বালানি খাতের ৫০ বছর শীর্ষক এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় এ বিষয়ে বক্তারা আলোচনা করেন।

এনার্জি এন্ড পাওয়ার ম্যাজিনের আয়োজনে এ আলোচনায় দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা গ্রহণ করেও আমাদের দেশে তা অনুসরণ করা যাচ্ছে না বলে জানান অধ্যাপক ড. ম. তামিম। তিনি বলেন, জ্বালানি ও বিদ্যুৎ চাহিদা প্রাক্কলন করে ১০ বছর সময়কে বিবেচনা করা উচিত।

বিজনেস ইনিশিয়েটিভ লিডিং ডেভেলপমেন্টের (বিল্ড) চেয়ারপারসন আবুল কাসেম খান বলেন, উন্নত দেশের কাতারে যেতে হলে আমাদের অর্জিত প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে হবে। সে কারণে আমাদের জ্বালানি সরবরাহে কোন বিকল্প নেই।

পেট্রোবাংলার সাবেক চেয়ারম্যান মোকতাদির আলী বলেন, কৃষি ও শিল্প খাতে উন্নয়নের পেছনে যে গল্প তার কারণ জ্বালানি। দিন দিন জ্বালানির সংকট বাড়ছে কিন্তু আমরা টেকসই পরিকল্পনা ও বাস্তবায়নে কৌশলগত কারণে পিছিয়ে আছি।

এছাড়াও বক্তৃতা করেন ইনস্টিটিউট অব এনভায়রনমেন্টাল স্টাডিজের পরিচালক অধ্যাপক ড. গোলাম সাব্বির সাত্তার, বাপেক্সের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুর্তজা আহমেদ ফারুক চিশতি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিপার্টমেন্ট অব ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজের অধ্যাপক এবং চেয়ারপারসন ড. রাশেদ আল মাহমুদ প্রমুখ।

নিউজনাউ/এসএ/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
মন্তব্য
Loading...
%d bloggers like this: