মার্কিন এফ-৩৫ বানালো বাঙালি প্রকৌশলী

নিউজনাউ ডেস্ক: বিশ্বের সবচেয়ে উন্নত যুদ্ধবিমান এফ-৩৫ নির্মাণে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছে বাঙালি মহাকাশ প্রকৌশলী। এক দশকেরও কম সময় আগে বিদেশে পাড়ি দিয়ে নিজেকে সেভাবেই তৈরি করেন আসিম রহমান। আজ তিনি মহাকাশ প্রযুক্তি শিল্পের অন্যতম বৃহৎ প্রতিষ্ঠান লকহিড মার্টিনে একজন মহাকাশ প্রকৌশলী হিসাবে কাজ করছেন।

লকহিড মার্টিনের এফ-৩৫ একটি অত্যাধুনিক যুদ্ধ বিমান। এটি সবচেয়ে নিরাপদ যুদ্ধবিমান বলে এফ-৩৫ এর বিশেষ চাহিদা রয়েছে। এফ-৩৫ তৈরিতে একজন মহাকাশ প্রকৌশলী হিসেবে অসীম রহমানের রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ অবদান। ২০১০ সালে ঢাকার ইংরেজি মাধ্যমের স্কুল সানবীম থেকে এ লেভেল সম্পন্ন করে উচ্চশিক্ষার জন্য জর্জিয়ার আটলান্টায় পাড়ি জমান। সেখানেই তিনি স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন।

আগে থেকে মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগের সাথে কাজ করার স্বপ্ন ছিলো অসীমের। তবে বাধা হয়ে দাঁড়ালো দেশটির সরকারি নিয়ম। নিয়ম অনুযায়ী মার্কিন নাগরিক ব্যতীত কেউ প্রতিরক্ষা বিভাগে কাজ করতে পারে না। স্নাতক সম্পন্ন করে নাগরিকত্বের আবেদন করে অসীম। ধাপে ধাপে সব নিয়মতান্ত্রিকতা মেনে মার্কিন মহাকাশ শিল্পে আবেদন করেন। ইতিহাসে নাম লেখানোর তীব্র আকঙ্কা নিয়ে ২০১৯ সালে শুরু হয় কর্মযজ্ঞ। অবশেষে সফল হলেন। বিশ্বজুড়ে সামরিক খাতে সমাদৃত লকহিড মার্টিনের এফ-৩৫ জেড বিমানের সফল নির্মাণে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন।

অনেকগুলো পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে এফ-৩৫ প্রোগ্রামের দায়িত্ব পান অসীম। সাংবাদিকদের তিনি বলেন, জর্জিয়া টেকের আমার একজন ঘনিষ্ঠ বন্ধু আমাকে লকহিড মার্টিনে একটি সুযোগ সম্পর্কে বলেছিলো এবং আমি তৎক্ষণাৎ আবেদন করেছিলাম। কয়েক দফা সাক্ষাৎকারের পরে আমাকে একটি প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল এবং এফ -৩৫ প্রোগ্রামের জন্য ম্যানুফ্যাকচারিং ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে আমি সই করেছিলাম। এটি ছিল মহাকাশ শিল্পে আমার উত্তেজনাপূর্ণ যাত্রার সূচনা।

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
মন্তব্য
Loading...
%d bloggers like this: