গড়ে চারজনের একজন কানে শুনবে না: ডব্লিউএইচও

নিউজনাউ ডেস্ক: জাতিসংঘের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী বর্তমানে পৃথিবীর জনসংখ্যা প্রায় ৭৭০ কোটি। এই বহুল জনসংখ্যায় প্রতিদিন কতই না সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় বিশ্ববাসীকে। এরই মাঝে নতুন আরেক সমস্যার সতর্কবানী দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

জানা গেছে, ২০৫০ সাল নাগাত বিশ্বের মোট জনসংখ্যার চার জনের মধ্যে একজন কানে শুনতে পারবেন না। হ্রাস পেতে পারে শ্রবণ ক্ষমতা। মঙ্গলবার (২ মার্চ) বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা’র এক সতর্ক বার্তায় এ তথ্য উঠে আসে। একই সাথে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য কানের চিকিৎসায় বিনিয়োগের জন্য আহ্বান জানিয়েছে সংস্থাটি।

যে সকল কারণে কানের সমস্যায় পড়তে হবে তা নিয়ে ডব্লিউএইচও’র মতামত:

* সংক্রমণ
* শরীরে বিভিন্ন রোগের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া
* জন্মগত সমস্যা থেকে শুরু করে ক্রমবর্ধমান শব্দ
* জীবনযাত্রার কারণে কানের সমস্যা বৃদ্ধি

এদিকে, সংস্থাটি যে রিপোর্ট প্রকাশ করেছে তাতে বলা হয়েছে, ‘সমস্যা মোকাবিলায় পদক্ষেপ করতে ব্যর্থ হলে, পরিণতি আরও ভয়ঙ্কর হবে। মানুষের স্বাস্থ্য ও সুখের উপরও প্রভাব ফেলবে। এ ছাড়াও তাদের পড়াশোনা, চাকরি এবং যোগাযোগ থেকে বিচ্ছিন্ন হতে হবে। যার ফলে আর্থিক ক্ষতি পর্যন্ত হতে পারে। বড় সংকট আসছে সামনে।’

রিপোর্টে আরও বলা হয়, তিন দশকে শ্রবণশক্তি হ্রাসের সমস্যায় কাটানোর লোকজনের সংখ্যা পূর্বের তুলনায় দেড় গুণ বেড়ে গিয়েছে। আগামীতে এর প্রভাব আড়াই বিলিয়ন লোকের ওপর পড়তে পারে। ২০১৯ সালে এই জাতীয় ব্যক্তির সংখ্যা ১.৬ বিলিয়ন ছিল। যেখানে বিশ্বজুড়ে পাঁচ জনের মধ্যে একজন এই মুহূর্তে শ্রবণ সমস্যার মুখোমুখি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ধারণা, ২০৫০ সালে ২.৫ বিলিয়ন এর মধ্যে, ৭০ কোটি লোক এই রোগে মারাত্মকভাবে আক্রান্ত হবে। তাই এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে হলে কানের চিকিৎসায় বিনিয়োগ বাড়াতে হবে।

নিউজনাউ/এবিএ/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
মন্তব্য
Loading...
%d bloggers like this: