ফের আন্দোলনে রংপুরের নর্দাণ মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা

রংপুর ব্যুরো: মাইগ্রেশনের দাবিতে রংপুরের নর্দাণ মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা ফের আন্দোলনে নেমেছে। সোমবার সকাল ১১টা থেকে থেকে বেলা আড়াইটা পর্যন্ত রংপুর-বুড়িরহাট সড়কের নর্দান মেডিকেল কলেজের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন তারা। এ সময় সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকে।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, টানা ২৩ দিন ধরে কলেজ কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জানানো, রাজধানীতে গিয়ে মানববন্ধন ও রংপুরে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালককে ঘেরাও করে বিক্ষোভ, মানববন্ধন করলেও কোনো পদক্ষেপ না নেয়ায় তারা শান্তিপূর্ণভাবে টানা আন্দোলন করছেন।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, নানা প্রতিশ্রুতি দিয়ে কলেজ কর্তৃপক্ষ মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে দেশী-বিদেশি প্রায় আড়াইশ শিক্ষার্থীদের ভর্তি করলেও পরবর্তীতে তাদের বৈধ কোন নিবন্ধন না থাকায় কলেজের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। রোববার সকাল ১১টায় মাইগ্রেশনের দাবিতে শিক্ষার্থীরা আন্দোলনে নামলে কলেজ কর্তৃপক্ষের লেলিয়ে দেয়া গুন্ডাবাহিনী ১০ তম ব্যাচের শিক্ষার্থী শিহাবকে মেরে আহত করে। গুরুত্বর অবস্থায় শিহাবকে রংপুর মেডিকেল কলেজে ভর্তি করা হয়। এঘটনায় ফুঁসে ওঠেন সাধারন শিক্ষার্থীরা। নগরীর পাকারমাথায় রাজপথ দখল করে আন্দোলনে নামেন তারা। এসময় শারীরিকভাবে অসুস্থ হয়ে পরেন আন্দোলনরত ৭ শিক্ষার্থী।

এনিয়ে মহানগর পুলিশের কোতোয়ালী থানার উপসকারী পুলিশ কমিশনার আলতাফ হাসেন জানিয়েছেন, শিক্ষার্থীদের নিয়ে কলেজ কর্তৃপক্ষের উদাসিনতা চরমে। চেষ্টা করেও সমাধানের পথ পাওয়া যাচ্ছেনা। শিক্ষার্থীদের নিরাপত্বাসহ আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান তিনি।

কলেজের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী নাসরিন আখতার, দেলোয়ার হোসেন, সাইফআলীসহ অনেকের অভিযোগ, নগরীর পাকার মাথায় অবস্থিত নর্দান প্রাইভেট মেডিকেল কলেজে শিক্ষক ও হাসপাতাল নেই। বাংলাদেশ মেডিকেল ডেন্টাল কাউন্সিল ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন না থাকা সত্ত্বেও আড়াইশ’দেশি-বিদেশি শিক্ষার্থীকে ভর্তি নেয়া হয়েছে। কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের আশ্বাস দিয়ে কলেজ চালালেও এখন পর্যন্ত অনুমোদন আনতে পারেনি। ধার করা রোগী ও শিক্ষক দিয়ে ক্লাস নেয়ায় প্রতারণার মাধ্যমে তাদের শিক্ষা জীবন ধ্বংস করছে কর্তৃপক্ষ। প্রতি বছর হাতিয়ে নিচ্ছে কোটি কোটি টাকা। এ সমস্যা নিরসনে অন্য মেডিকেল কলেজে মাইগ্রেশনের সুযোগ দেয়ার দাবি জানিয়ে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন চালিয়ে আসছেন। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা তাদের।

 

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
মন্তব্য
Loading...
%d bloggers like this: