যন্ত্রণা ও মুক্তি : শিপন হালদার

ফেসবুকে আমার স্ট্যাটাস সংখ্যা হাতেগোনা। কিন্তু একটা স্ট্যাটাস দেবো বলে ঠিক করেছি। কারণ এটা যন্ত্রণা ও মুক্তির বিষয়। যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পেতেই আজকের এই স্ট্যাটাস।
নতুন কিছু করার। নতুন কিছু সৃষ্টির। নতুন কিছু উদ্যোগ নেয়ার ইচ্ছেটা আমার আগে থেকেই। ২০০৭ সাল। আমি তখন বাংলাভিশনে। সিডরে লণ্ডভণ্ড নিজ জেলা বাগেরহাটসহ উপকূলীয় অঞ্চল। দুর্গত এলাকায় ত্রাণ বিতরণ শুরু করলো সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সংগঠন। আমারও ইচ্ছে হলো কিছু একটা করার। মানুষের কল্যাণে কিছু করার ইচ্ছে থেকে শুরু করলাম সেভ ফাউন্ডেশন। ২০১০ সালে রেজিস্ট্রেশনও নিলাম। কিন্তু সাংবাদিকতা পেশা, সাংসারিক বাস্তবতার কারণে তেমন কিছুই করতে পারিনি। সেভ ফাউন্ডেশন সেভাবেই পড়ে আছে। কোন কাজে লাগছে না মানুষের কল্যাণে। এই বিষয়টা যন্ত্রণা হয়ে বিঁধে আছে মনের মধ্যে!
২০১৩ সাল। এসএটিভির বার্তা বিভাগ গোছানোর কাজ করছি আমরা (সাইফুল হুদা, ওয়াহিদ মিল্টন, শরিফুল ইসলাম, বিপ্লব শাহরিয়ার এবং আমি)। কাজের চাপ কম, ভাবলাম অনলাইন কিছু একটা করবো। সেই চিন্তাকে এগিয়ে দিলো রনজক রিজভী (এখন বার্তা সম্পাদক, এসএটিভি)। শুরু হলো নিউজনাউ২৪ ডট কমের (www.newsnow24.com) যাত্রা। অনেকবার চেষ্টা করেছি, কিন্তু পারিনি অনলাইন নিউজ পোর্টালটিকে দাঁড় করাতে। বারবার হোঁচট খেয়েছি। আলোচিত হয়েছি। হয়েছি সমালোচিত। ব্যর্থ হয়েছি, মর্মাহত হয়েছি এই দেখে যে, অন্যরা পারছেন, আর আমি পারছি না! এতোই অযোগ্যতা আমার! মনের সাথে কথা বলেছি অনেক, কথা বলেছি প্রিয়জনদের সাথে। কোন লাভ হয়নি। নিজের মতো কিছু হয়নি। কিন্তু হতে পারতো। সম্ভাবনা ছিল। হয়তো এখনো আছে!
একদিকে, নিজের মতো কিছু না করতে পারার যন্ত্রণা। হতাশা। অন্যদিকে, সম্ভাবনার হাতছানি। সেই হাতছানি থেকেই সম্প্রতি কিছু করতে না পারার যন্ত্রণা থেকে আংশিক মুক্তি পেয়েছি। কারণ, নিউজনাউ২৪ ডট কম এর সব স্বত্ত্ব একজন বিশাল মনের অধিকারী বড় ভাইকে আইনসম্মত ভাবে হস্তান্তর করে দিয়েছি। প্রত্যাশা, নিউজনাউ একদিন প্রথম সারির অনলাইন হবে। কল্যাণমূলক সমাজ ও রাষ্ট্রগঠনে ভূমিকা রাখবে।
উল্লেখ্য, এখনো যন্ত্রণা থেকে মুক্তি মেলেনি আমার। সেভ ফাউন্ডেশন নিয়ে হৃদয়ের অর্ধেকটা ভার হয়ে আছে। হৃদয়বান কোন ভাই/বন্ধুকে দিয়ে দিলে হয়তো মুক্তি মিলবে আমার!

শিপন হালদার, বার্তা সম্পাদক, নিউজ টোয়েন্টি ফোর। ফেসবুক ওয়াল থেকে নেয়া।

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান