কেরানীগঞ্জে অগ্নিকাণ্ডে মৃতের সংখ্যা বেড়েই চলছে

অনলাইন ডেস্ক :ঢাকার কেরানীগঞ্জে প্লাস্টিক সামগ্রী তৈরির কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে আরো নয়জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে অগ্নিকাণ্ডে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ১০-এ।
ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক মো. বাচ্চু মিয়া জানিয়েছেন, বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার রাতে ও আজ বৃহস্পতিবার সকালে তাদের মৃত্যু হয়।

গতকাল বুধবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে কেরানীগঞ্জের চুনকুঠিয়া এলাকায় প্রাইম প্লেট অ্যান্ড প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড কারখানায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। একতলা টিনশেড ওই কারখানায় ওয়ান টাইম প্লেট, কাপসহ প্লাস্টিকের বিভিন্ন সামগ্রী তৈরি করা হতো। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে থাকতে পারে।

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ১০টি ইউনিট দুর্ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রায় দেড় ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার পর কারখানার ভেতর থেকে একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এছাড়াও দগ্ধ অবস্থায় ৩৫ জনকে হাসপাতালে নেয়া হয়। চিকিৎসকরা জানান, ভর্তিকৃতদের সবারই শ্বাসনালিসহ শরীরের ৩০ শতাংশের বেশি পুড়ে গেছে।

চিকিৎসাধীনদের মধ্যে আজ বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতদের মধ্যে রয়েছেন ওই কারখানার কর্মী খালেক, সালাউদ্দিন, ইমরান, বাবলু, রায়হান, সুজন, জিনারুল হোসেন ও আলম। মৃত অন্য একজনের পরিচয় এখনো জানা যায়নি।

এ দুর্ঘটনায় দগ্ধ আরও ২৬ জন ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন আছেন। তাদের অবস্থাও ভালো নয় বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

ঢামেক বার্ন ইউনিটের আবাসিক সার্জন (আরএস) ডা. আরিফুল ইসলাম নবীন এখন পর্যন্ত ১০ জনের মৃত্যু নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, বুধবার রাত থেকে আজ (বৃহস্পতিবার) সকাল পর্যন্ত অগ্নিদগ্ধদের মধ্যে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৯ জনের মৃত্যু হয়।

প্রসঙ্গত, এ বছরের ২০ ফেব্রুয়ারি রাতে পুরান ঢাকার চুড়িহাট্টায় আগুন লেগে ৭০ জন নিহত হন। ২০১৬ সালের ১০ সেপ্টেম্বর টাম্পাকো প্যাকেজিং ফ্যাক্টরিতে আগুনে নিহত হন ২৪ জন।

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান