ভয়ে গভীর রাতে সপরিবারে বাসভবন ছাড়লেন হাবিপ্রবি ভিসি

দিনাজপুর প্রতিনিধি: নিরাপত্তার অভাবে রাতের অন্ধকারে পরিবার নিয়ে ক্যাম্পাসের বাসভবন থেকে ঢাকায় ফিরেছেন দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) ভাইস চ্যান্সেলর (ভিসি) প্রফেসর ড. মু. আবুল কাশেম।

১৮ দিনের মধ্যে ২২ কর্মকর্তার নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন এবং রাতারাতি অ্যাডহক ভিত্তিতে বেশ কিছু কর্মকর্তা নিয়োগে চাপ দেয়ায় তিনি ঢাকায় চলে যান অভিযোগ করেছেন ভিসি।

এ নিয়ে ক্যাম্পাসে বিরাজ করছে থমথমে অবস্থা। এর আগে মঙ্গলবার পরিবার নিয়ে দিনভর বাসভবনে অবরুদ্ধ ছিলেন তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত ২০১৯ সালের ২৩ ডিসেম্বর হাবিপ্রবিতে ৬২ জন শিক্ষক এবং গত বছরের ২৬ ও ২৮ জানুয়ারি ২২ জন কর্মকর্তা ও ৫০ জন কর্মচারী নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। এরপর করোনা পরিস্থিতি ও নানান অভিযোগে বন্ধ থাকে নিয়োগ প্রক্রিয়া। আগামী ৩১ জানুয়ারি ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মু. আবুল কাশেমের চাকরির মেয়াদ শেষ হবে। এজন্য চাকরিপ্রার্থী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশ কিছু শিক্ষক এসব নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার চাপপ্রয়োগ করে আসছিলো ভাইস চ্যান্সেলরকে।

এ নিয়ে প্রশাসনের দায়িত্বে থাকা শিক্ষকদের সঙ্গে ভিসির মতবিরোধ চরমে পৌঁছে। এ অবস্থায় ভিসির অসহযোগিতায় একাডেমিক ও প্রশাসনিক কাজে অচলাবস্থা সৃষ্টির অভিযোগ এনে গত ৭ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারসহ গুরুত্বপূর্ণ প্রশাসনিক পদে নিয়োজিত ১৭ জন শিক্ষক তাদের প্রশাসনিক দায়িত্ব পালন থেকে কর্মবিরতি শুরু করেন।

এরইমধ্যে রেজিস্ট্রার প্রফেসর ডা. মো. ফজলুল হককে পদ থেকে অপসারণ করেন ভিসি। পরবর্তীতে দুইপক্ষের সমঝোতায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম স্বাভাবিক হয়। কর্মবিরতি প্রত্যাহার করেন সবাই এবং প্রফেসর ডা. মো. ফজলুল হক স্বপদে পুনর্বহাল হন।

কিন্তু ভিসি প্রফেসর ড. মু. আবুল কাশেমের মেয়াদ ফুরিয়ে আসায় আবারও শুরু হয় নিয়োগের জন্য চাপ প্রয়োগ। মঙ্গলবার বেলা ১১টা থেকে চাকরিপ্রার্থীরা ভিসির বাসভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। বিকেলের দিকে বেশ কিছু ছাত্র বাসভবনের প্রাচীর টপকে ভেতরে গিয়ে বিক্ষোভ করেন। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে প্রশাসনকে খবর দেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পরিস্থিতি প্রতিকূল দেখে রাতের আঁধারে পরিবার নিয়ে সড়কপথে ঢাকায় চলে যান ভিসি আবুল কাশেম।

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
মন্তব্য
Loading...
%d bloggers like this: