পশুর হাট নিয়ে ভাবনা নেই বরিশাল প্রশাসনের

শামীম আহমেদ, বরিশাল ব্যুরো:
মাত্র কদিন পরেই দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম উৎসব ঈদুল আযহা (কুরবানি ঈদ) পালন করবে বরিশালের মানুষ। করোনা পরিস্থিতিতে এবারের উৎসব কিংবা উৎযাপনের ব্যস্ততার রং ফিকে হয়েছে অনেকটা। কিন্তু স্রষ্টার নৈকট্য লাভের আশায় পশু কুরবানি থেমে থাকবে না এবারও। প্রতিবছর কুরবানির পশু কেনার মূল ভরসা হয়ে ওঠে জেলার বিভিন্ন জায়গায় স্থাপিত অস্থায়ী পশুর হাট। করোনা সংকটের বর্তমান পরিস্থিতিতে এসব হাট পরিচালনার ব্যবস্থাপনা বিষয়ে এখনো কোন দৃশ্যমান পদক্ষেপ নেয়নি বিসিসি ও বরিশাল জেলা প্রশাসন।

অপরদিকে কোরবানির পশুর হাট যেন করোনা জীবাণু সংক্রমণের অন্যতম স্থান না হয় সে ব্যাপারে নজর দেওয়ার তাগিদ দিয়েছেন স্থানীয় সচেতন নাগরিক সমাজ।

গত বছর বরিশাল মহানগরসহ জেলার ৬৬টি স্থানে কুরবানির পশুর হাট বসেছিলো এবং সিটি কর্পোরেশনের ১৪২টি স্থানে কুরবানি পশু জবাইয়ের স্থান নির্ধারণ করা হলেও এবারের ঈদুল আজহা উপলক্ষে সিটি কর্পোরেশন থেকে এখন পর্যন্ত নেয়া হয়নি কোনো পদক্ষেপ।

বরিশাল মহানগর ইমাম সমিতির সভাপতি মাওলানা কাজি আব্দুল মান্নান নিউজনাউকে জানান, যাদের ওপর কুরবানি ওয়াজিব তাদের সবাইকে পশু কুরবানির মাধ্যমে আল্লাহ্‌র নৈকট্য অর্জন করতে হবে। আবার করোনা জীবাণুর আক্রমণ থেকে নিজেকে ও পরিবারকে মুক্ত রাখার চেষ্টাও করতে হবে।

এই দুটি বিষয় গুরুত্বপূর্ণ হওয়ায় কুরবানির পশুর হাট যেন ক্রেতাদের জন্য নিরাপদ হয় সে ব্যাপারে প্রশাসনের পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।

তিনি পরামর্শ দেন, যদি বিগত দিনের চেয়ে ছোট জায়গা নিয়ে কিন্তু বেশি পরিমাণে পশুর হাট করা যায় ও নির্দিষ্ট এলাকার মানুষদের জন্য নির্দিষ্ট পশুর হাট নির্ধারণ করা যায় তবে সংক্রমণ এড়ানো সম্ভব। তবে এক্ষেত্রে প্রতিটি হাটে ক্রেতাদের শারীরিক দূরত্ব বজায় নিশ্চিত করাসহ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করার ব্যাপারে যথাযথ নজরদারি রাখতে হবে।

অন্যদিকে কুরবানির পশু কেনা বেচার জন্য অনলাইন প্লাটফর্ম ব্যবহার করার পরামর্শ দিয়েছেন জাতীয় পার্টির যুগ্ম মহাসচিব ইকবাল হোসেন তাপস।

তিনি বলেন, ‘কুরবানির হাটে যে ধরণের ভিড়ভাট্টার চিরায়ত চিত্র আমরা দেখি সেটা যেন এবার ফিরে না আসে সে ব্যাপারে লক্ষ্য রাখতে হবে।এজন্য অনলাইনে পশু বিক্রিকে স্থানীয় প্রশাসনের উৎসাহিত করা উচিত। এছাড়া সাধারণ হাটগুলো ডিজিটালাইজড করে সেগুলোতে যথাসম্ভব সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করা জরুরী।’

এ ব্যাপারে বরিশাল জেলা প্রশাসক এস এম অজিয়র রহমান নিউজনাউকে জানান, এখনো উল্লেখযোগ্য কোন পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। তবে এবারের পশুর হাট পরিচালনা বিগত দিনের মতো হবে না।

তিনি উল্লেখ করেন, ‘করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখেই আমরা পশুর হাট ব্যবস্থাপনা নতুন করে ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনা নিয়েছি। এ বিষয়ে আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই সবাইকে জানিয়ে দেয়া হবে।’

এ ব্যাপারে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের ভেটেরিনারি সার্জন ডা. রবিউল ইসলাম নিউজনাউকে বলেন, ‘আমাদের এখানে ঈদের এক সপ্তাহ আগে পশুর হাট জমে উঠে তাই এখন পর্যন্ত আমরা কোন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করি নাই। তবে আগামী সপ্তাহের মধ্যে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করা হবে। এছাড়া পশু জবাইয়ের স্থান গতবারে যা ছিল সে ধরনের থাকার সম্ভাবনা রয়েছে এর ভিতর দু’একটা কমতে পারে অথবা বাড়তে পারে।’

নিউজনাউ/এবি/২০২০

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: