চিকিৎসককে লাঞ্ছিতের ঘটনায় বহির্ভিবাগে সেবা বন্ধ

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসারকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় প্রতিবাদ ও বিচার চেয়ে বহির্বিভাগে চিকিৎসা সেবা বন্ধ রেখেছেন।

এসময় তারা হাসপাতালের সামনে ব্যানার টানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও চিকিৎসকসহ স্বাস্থ্যকর্মীদের নিরাপদ কর্মস্থল নিশ্চিতের দাবি জানিয়েছেন।

এছাড়া এ ঘটনায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. জসিম উদ্দিন বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। এ মামলায় গাজী তরিকুলের নাম উল্লেখ সহ অজ্ঞাত আরো ৪/৫ জনকে আসামী করা হয়েছে।

তবে চালু রয়েছে করোনা ইউনিট, জরুরি বিভাগসহ সব বিভাগ।

মামলার বিবরণে জানাগেছে, শনিবার (৪ জুলাই) সকাল পৌনে ৮ টার দিকে টুঙ্গিপাড়া উপজেলা সদরের কেড়ালকোপা গ্রামের কাজী আলমগির (৬৫) নামে এক রোগী করোনা উপসর্গ নিয়ে টুঙ্গিপাড়া হাসপাতালে আসেন । তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে হাসপাতালে ভর্তি করার কার্যক্রম শুরু করে কর্তব্যরত চিকিৎসক ।

তার কিছুক্ষণ পরেই তিনি মারা যান। তখন রোগীর আত্মীয় গাজী তরিকুল সহ কয়েকজন দ্বায়িত্বে অবহেলার অভিযোগ তুলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ অপূর্ব বিশ্বাসকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। তারা কর্তব্যরত নার্সদের উপর তেড়ে যান।

টুঙ্গিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. জসিম উদ্দিন বলেন, আমরা করোনা ও জরুরী বিভাগসহ হাসপাতালের সব বিভাগ চালু রেখেছি। নিরাপদ কর্মস্থলের দাবিতে শুধু বহির্বিভাগে চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেনা চিকিৎসকরা।

এ ঘটনায় অভিযুক্তদের দ্রুত গ্রেপ্তার করতে হবে। তাদের গ্রেপ্তারের সাথে সাথে আমরা বহির্বিভাগেও চিকিৎসা সেবা চালু করে দেব।

আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও চিকিৎসক সহ সব স্বাস্থ্যকর্মীর নিরাপদ কর্মস্থল নিশ্চিতের দাবি জানিয়েছি।

টুঙ্গিপাড়া থানার ওসি এএফএম নাসিম বলেন, চিকিৎসকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। টুঙ্গিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. জসিমউদ্দিন বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেছেন। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারে জন্য অভিযান অব্যাহত রেখেছি।হাসপাতালের আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সেখানে পুলিশ মোতায়েন রাখা রয়েছে।
নিউজনাউ/এফএফ/২০২০

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: