কেউ বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হলে করণীয়

নিউজনাউ ডেস্ক:

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যুর ঘটনা আমাদের দেশে নিত্যনৈমিত্তিক বিষয়। বিশেষ করে বৃষ্টিবাদলের দিনে এই ঘটনাগুলো বেশি ঘটে। বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হওয়ার কারণে বিদ্যুৎ প্রবাহ শরীরের রক্ত সঞ্চালন প্রক্রিয়ায় বাধা সৃষ্টি করে স্নায়ুতন্ত্র ও শ্বসনতন্ত্রে আঘাত করে প্রচণ্ডভাবে। এতে কিছুক্ষণের মধ্যে রোগী অজ্ঞান হয়ে পড়ে। শরীরের টিস্যুগুলোর মধ্য দিয়ে বিদ্যুৎ প্রবাহের কারণে গভীর দাহ সৃষ্টি হয়।

তাই মাথায় রাখুন এই বিষয়গুলো-

১. কারও শরীরে বিদ্যুতের তার জড়িয়ে গেলে বা কেউ বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হলে সাথে সাথে মেইন সুইচ বন্ধ করে দিতে হবে। আর কোনো কারণে সুইচ বন্ধ করতে না পারলে শুকনো কাঠ দিয়ে তাকে ধাক্কা দিয়ে ছাড়িয়ে দিতে হবে।

২. বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ব্যক্তির গায়ে কখনো পানি দেবেন না। আশেপাশে শুকনো কাঠ বা  লাঠি খুঁজে নিন। সেটি দিয়ে ধাক্কা দিয়ে ছাড়ানোর চেষ্টা করুন। কাঠ না পেলে শুকনো কাপড় হাতে জড়িয়ে ধাক্কা দিতে হবে। কখনো খালি হাতে ধরলে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে বিপদ ঘটতে পারে।

৩. যিনি বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ব্যক্তিকে বিদ্যুৎ প্রবাহ থেকে বিচ্ছিন্ন করছেন, খেয়াল রাখতে হবে তাঁর হাত দুটো যেন শুকনো থাকে এবং তাঁকে শুকনো কিছুর ওপর দাঁড়িয়ে কাজটি করতে হবে। এক্ষেত্রে পায়ে স্পঞ্জের স্যান্ডেল থাকতে হবে।

৪. শ্বাসক্রিয়া না চললে কৃত্রিমভাবে শ্বাসকার্য চালাতে হবে। প্রয়োজনে রোগীকে উপুড় করে রোগীর এক হাত লম্বা করে এবং অন্য হাতটি ভাঁজ করে মাথার নিচে রেখে রোগীর পিঠে চাপ দেওয়া যেতে পারে।

৫. যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যেতে হবে।

৬. বিদ্যুতের উৎস থেকে সরাতে পারলে সঙ্গে সঙ্গে গরম দুধ ও গরম পানি খাওয়ান আক্রান্ত ব্যক্তিকে। এতে শরীরের রক্ত সঞ্চালন দ্রুত স্বাভাবিক হবে।

বৈদ্যুতিক শক এড়াতে সাবধানতাগুলো

১. পানি হাতে বাড়ির বৈদ্যুতিক সুইচে ভুলেও হাত দেবেন না।

২. বিদ্যুতের লাইনের কাজ করার সময় মেইন সুইচ বন্ধ করে নিন আগেই।

৩. পায়ে রাবারের জুতো দিয়ে বিদ্যুতের কাজ করবেন।

৪. বাড়ির সব বৈদ্যুতিক তার ও আর্থিং ঠিক আছে কি না তা দেখে নিন। ত্রুটিপূর্ণ কোনো লাইন থাকলে ঠিক করিয়ে নিন।

৫. বৈদ্যুতিক লাইন সবসময় নিরাপদে, সংস্পর্শ বা নাগালের বাইরে রাখবেন। বজ্রপাতের সময় জরুরি বৈদ্যুতিক লাইনগুলো বন্ধ রাখবেন। একই পয়েন্ট দিয়ে বেশি সংযোগ দেবেন না।

নিউজনাউ/এসএইচ/২০২০

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: