বঙ্গবন্ধু সেতু থেকে অপহৃত ব্যবসায়ী উদ্ধার, আটক ৮

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: ঠাকুরগাঁও থেকে অপহরণের আট ঘন্টা পর জুয়েল রানা (২৮) নামের এক ব্যবসায়ী যুবককে উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার (৪ জুলাই) ভোরে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানা পুলিশের সহযোগিতায় ঠাকুরগাঁও থানা পুলিশ জুয়েল রানাকে হাত পা বাধা অবস্থায় মাইক্রোবাসের ভেতর থেকে উদ্ধার করে। এসময় অপহরণকারী চক্রের আট সদস্য ও অপহরণকাজে ব্যবহৃত মাইক্রোবাসটিও আটক করা হয়।

জুয়েল রানার বাড়ি ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার সালন্দর ইউনিয়নে। শুক্রবার (৩ জুলাই) রাতে অপহৃত ব্যবসায়ী জুয়েল রানার মা আনজুয়ারা বেগম বাদি হয়ে ঠাকুরগাঁও সদর থানায় অজ্ঞাতনামা একটি মামলা দায়ের করেন। এর ভিত্তিতে পুলিশ অপহরণকারীদের অবস্থান শনাক্ত করে জুয়েলকে উদ্ধার করে। আটককৃতরা হলো, জামালপুর জেলার আশারফুল ইসলাম আরিফ (২৭), কুড়িগ্রাম জেলার হুমায়ুন কবির (৪৫), জামালপুর জেলার আলাউদ্দিন (৩৫), বি-বাড়িয়া জেলার দেলোয়ার হোসেন (৩২), বগুড়া জেলার দেলোয়ার হোসেন (৪৫), নোয়াখালী জেলার সোহাগ (৩২), বি-বাড়িয়া জেলার আল আমিন (৩৫) ও মাইক্রোবাস চালক রাজশাহী জেলার সালাউদ্দীন (৩৯)।

ঠাকুরগাঁও সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তানভিরুল ইসলাম নিউজনাউকে বলেন, শুক্রবার (৩ জুলাই) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার দেবীপুর ইউনিয়নের ১১ মাইল এলাকার জাফর আলী ফিলিং স্টেশন থেকে মোটরসাইকেলে পেট্রোল নিয়ে বাড়িতে ফিরছিলেন ব্যবসায়ী জুয়েল রানা। এ সময় পাম্পের অদূরে ঠাকুরগাঁও-পঞ্চগড় সড়কে মোটরসাইকেলের পথরোধ করে জোরপূর্বক ব্যবসায়ী জুয়েলকে একটি মাইক্রোবাসে তুলে অপহরণ করা হয়। অপহরণকারীরা মুঠোফোনে জুয়েলের পরিবারের কাছে ১৫ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। পরে তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু যমুনা সেতু পশ্চিম থানা পুলিশের সহযোগিতায় যমুনা ব্রীজ এলাকায় মাইক্রোবাসটিকে আটক করা হয়। এরপর অপহৃত ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করা হয়। এসময় অপহরণকারী চক্রের ৮ সদস্যকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় আরও কেউ জড়িত থাকলে তাদেরও আইনের আওতায় আনা হবে।

নিউজনাউ/এসএ/২০২০

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: