শূন্য বগি নিয়ে চলছে ‘প্রায় ফাঁকা’ বেনাপোল এক্সপ্রেস

নিজস্ব প্রতিবেদক:

কেউ বলছে করোনা সবকিছু থামিয়ে দিয়েছে, আবার কেউ বলছে কিছুই থেমে নেই। এই দ্বন্দ্ব থামাতে হলে বের হতে হবে ঘর থেকে, দেখতে হবে রাস্তাঘাট, গণপরিবহন, ট্রেন, বিমান। দেশে করোনা আর স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা নিয়ে শুরু থেকেই চলছে বিভিন্ন প্রশ্ন। সেসব প্রশ্ন বাদ দিলাম না হয়। দেশের অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে সাধারণ ছুটি উঠিয়ে এলাকাভিত্তিক লকডাউন চলছে, গণপরিবহন, বাস ট্রেন ‘সীমিত পরিসরে’ খুলে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু দূরপাল্লার যানগুলো কেমন চলছে, সেটা আমাদের খুব বেশি জানা নেই আমাদের।

বিশেষ করে ট্রেনযাত্রায় কিছুটা ঝিমুনিভাব শুরু থেকেই। গত ৩১ মে থেকেই চালু হয় ট্রেন সার্ভিস। কিন্তু শুরু থেকেই চলছে যাত্রীসংকট।। এই গতমাসেই ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটের আন্তঃনগর সোনার বাংলা এবং ঢাকা-নোয়াখালী রুটের উপকূল এক্সপ্রেসের চলাচল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয় রেলপথ মন্ত্রণালয়।

এদিকে বেনাপোল এক্সপ্রেসের অবস্থাও একইরকম। বেনাপোল থেকে ঢাকা রুটের ট্রেনটি আজ দুপুর ১২:৪৫ মিনিটে বেনাপোল থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসে। কিন্তু যাত্রী সংখ্যা রীতিমতো হতাশাজনক। বেশিরভাগ বগিই দেখা যায় ফাঁকা। কোনো কোনো বগিতে মাত্র একজন যাত্রী। ৩/৪টা বগিতে কোনো যাত্রীই নেই। কোনো বগিতে মোটামুটি ১৫ জনের বেশি যাত্রীর দেখা মেলেনি।

এদিকে টিকিটের দামও বেশি রাখা হয়নি। অনলাইনে বা সাধারণভাবে টিকিটের সাধারণ মূল্য ধরা হচ্ছে। ট্রেনে টিকিট চেকের জন্য কোনো টিটির দেখাও মেলেনি।

করোনার সতর্কতা মোটামুটিভাবে মেনে চলা হচ্ছে। বিভিন্ন স্টেশন এবং প্লাটফর্মে দূরত্ব মেনে যাত্রীদের দাড়ানো এবং ওঠানামার ব্যবস্থা রয়েছে।

এই পরিস্থিতিতে এত কমসংখ্যক যাত্রী নিয়ে কীভাবে রেল মন্ত্রণালয় সামনে এগোবে সেটি বড় প্রশ্ন। বাংলাদেশের পরিপ্রেক্ষিতে রেলপথ অন্য যেকোনো পরিবহনের চেয়ে নিরাপদ এবং সাশ্রয়ী। কিন্তু করোনাকালে সবকিছু স্থবির হওয়ার কারণে দূরপাল্লার চলাচল কমে হুমকির মুখে পড়ছে রেলপরিবহন।

নিউজনাউ/এসএইচ/২০২০

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: