ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বেহাল দশা

শরিফ চৌধুরী, হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের হবিগঞ্জের অলিপুর শিল্পাঞ্চল থেকে শায়েস্তাগঞ্জ নতুন ব্রিজ পর্যন্ত অংশের রাস্তাটি ভেঙে খানাখন্দে পরিণত হয়েছে ৷

বর্তমানে মহাসড়কের এই অংশটির বেহাল দশা ৷ এতে যাত্রী সাধারণদের যানবাহনে চলাচলে চরম দুর্ভোগের শিকার হতে হচ্ছে । প্রতিনিয়তই এই মহাসড়কের এই এলাকায় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটছে ৷ আর জীবনের এই ঝুঁকি নিয়েই প্রতিদিন চলছে হাজার হাজার গণপরিবহন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মহা-সড়কের অলিপুর শিল্পাঞ্চল থেকে শায়েস্তাগঞ্জের নতুন ব্রিজ এলাকার প্রায় ১০ কিলোমিটার রাস্তা দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না করায় বিভিন্ন স্থান ভেঙে গর্ত সৃষ্টি হয়ে বড় ধরনের খানাখন্দে পরিণত হয়েছে৷

কয়েকদিন পরপরই এই এলাকায় দুর্ঘটনায় বহু লোকের প্রাণহানির ঘটনাও ঘটছে ৷ আর যারা বেঁচে যাচ্ছেন তাদের বেশির ভাগ লোকজনকে পঙ্গুত্ব বরণ করতে হচ্ছে ৷

ঢাকা- সিলেট মহাসড়ক হওয়ায় প্রতিদিনই দিন-রাত ২৪ ঘণ্টা হাজার হাজার যানবাহন এই সড়ক দিয়ে যাতায়াত করছে ৷ আবার শায়েস্তাগঞ্জ ও অলিপুর শিল্পাঞ্চলের স্থানীয় জন সাধারণদেরকে এই মহাসড়ক দিয়েই চলাচল করতে হয় ৷ এলাকাবাসীরা অনেক ঝুঁকি নিয়েই এই রাস্তায় চলাচল করে।

এ মহাসড়ক দিয়ে প্রতিদিন পণ্য নিয়ে যাতায়াতকারী ট্রাক চালক আব্দুল হক নিউজনাউকে জানান, মহাসড়কের অলিপুর রেলগেইটের অবস্থা খুব করুন। অলিপুর রেলগেইটের পাশের ডিভাইডারটিও ভেঙে গেছে। বর্তমানে গর্তগুলো বড় হয়ে যাওয়ার কারণে একটু বৃষ্টি হলেই পানি জমে যায়। তাছাড়া এসব গর্তের উপর দিয়ে প্রতিদিন গাড়ী চলার কারণে গাড়ীর মেশিনের বিভিন্ন যন্ত্রাংশ বিকল বা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এসব কারণে সময়ও বেশি লাগছে।

অপর গাড়ি চালক মখলিছ মিয়া নিউজনাউকে জানান, রাতের বেলা শায়েস্তাগঞ্জ গোল চত্বরে আসলেই মনের ভিতরে অজানা আতঙ্ক বিরাজ করে ৷ কখন খানাখন্দে পড়ে গাড়ির চাকা নষ্ট হয়ে যায়। সড়কটি জরুরীভাবে মেরামত করা দরকার।

এদিকে মহাসড়কের এই ভাঙা অংশটি সংস্কারের ব্যাপারে আশার বাণী শুনিয়েছেন সড়ক ও জনপথ বিভাগের হবিগঞ্জের নির্বাহী প্রকৌশলী সজীব আহমেদ ৷
তিনি নিউজনাউকে জানান, ইতিমধ্যে মহাসড়কের মাধবপুর অংশ থেকে আউশকান্দি পর্যন্ত যেসব স্থানে চলাচলের অনুপযুক্ত সেসব এলাকার রাস্তার সংস্কারের জন্য ঠিকাদার নিয়োগ দেয়া হয়েছে ৷ ১৭ কি.মি. রাস্তা সংস্কারের টেন্ডার সম্পন্ন হয়েছে৷ কিছু দিনের মধ্যেই কাজ শুরু হবে আশা করি ৷
নিউজনাউ/এফএফ/২০২০

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: