যমুনায় পানি বৃদ্ধি, ডুবছে কৃষকের ফসল

হারুন অর রশিদ খান হাসান, সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জে বেড়েই চলেছে যমুনা নদীর পানি। যমুনার পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় পানিতে ডুবছে নিম্নাঞ্চলের কৃষকের ফসল।

শুক্রবার ( ২৬ জুন) সকালে সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী এ.কে.এম. রফিকুল ইসলাম নিউজনাউকে জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় সিরাজগঞ্জ পয়েন্টে যমুনা নদীর পানি ১২ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে শুক্রবার (২৬ জুন) সকাল ৬টায় বিপৎসীমার ৪৫ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল।

তিনি আরো জানান, যমুনা নদীতে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র।

অন্যদিকে যমুনা নদীর পানি বাড়তে থাকায় প্রতিদিনই জেলার কাজীপুর, সদর, বেলকুচি, শাহজাদপুর ও চৌহালী উপজেলার চরাঞ্চলের নিম্নভূমি প্লাবিত হচ্ছে। তলিয়ে যাচ্ছে ফসলি জমি। বিশেষ করে নদীর চর এলাকার আউশ ধান, বাদাম ও পাটক্ষেত তলিয়ে যাওয়ায় কৃষকেরা বিপাকে পড়েছে।

পানিতে তলিয়ে যাওয়া অপরিপক্ব পাটগাছে পচন ধরায় বাধ্য হয়েই কৃষকেরা অপরিপক্ব পাট কাটতে শুরু করেছে। এতে পাটের ফলন ভালো হবে না এবং পাট চাষে কৃষকেরা ক্ষতির মুখে পড়বে। এছাড়া তিল, বাদাম, ভুট্টা, কাউন, আখ ও সবজি ক্ষেত পানিতে তলিয়ে গেছে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক (ডিডি) মো: হাবিবুল ইসলাম জানান, যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি ও বৃষ্টির পানিতে সিরাজগঞ্জ জেলার কাজিপুর, সদর, বেলকুচি, চৌহালী ও শাহজাদপুর উপজেলার প্রায় ৩০টি ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল তলিয়ে গেছে। এতে ১৫ শত ৯ হেক্টর ফসলি জমি পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে।

এদিকে পানি বাড়ার সাথে বিভিন্ন স্থানে দেখা দিয়েছে নদী ভাঙন। বাঁধ নির্মাণের দাবিতে মানববন্ধন করেছে স্থানীয়রা। এনায়েতপুর থানার দক্ষিণাঞ্চলের ৬ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যমুনা নদীর ভাঙন চলছে। ভাঙন ঠেকাতে স্থায়ী তীর সংরক্ষণ বাঁধ নির্মাণের দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকার ভুক্তভোগী মানুষেরা। যমুনার পাশাপাশি করতোয়া ও বড়ালসহ অভ্যন্তরীণ নদ-নদীর পানিও বাড়ছে।

নিউজনাউ/এফএফ/২০২০

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: