বিদায় ডাক্তার সামিরুল ইসলাম বাবু

চট্টগ্রাম ব্যুরো: ডা. সামিরুল ইসলাম বাবু করোনা জয় করেছিলেন ঠিকই। তবে তার আগেই করোনা তার ফুসফুস অকার্যকর করে ফেলেছিল। তাই করোনা নেগেটিভ হয়েও করোনার সাথে যুদ্ধে আর পেরে উঠলেন না চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের এই সহযোগী অধ্যাপক।

বুধবার (২৪ জুন) দুপুর ১টা ৫৯ মিনিটে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান চট্টগ্রামে অর্থোপেডিক্সের স্বনামধন্য এই চিকিৎসক। তাঁর মৃত্যুতে গভীর শোক নেমে এসেছে চট্টগ্রামের চিকিৎসক সহ সংশ্লিষ্ট মহলে।

চট্টগ্রামে প্রথম প্লাজমা নেওয়া এই ডাক্তার ৩১ মে করোনা নেগেটিভ হয়ে খানিকটা সুস্থ হয়েছিলেন। এরপর চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউ থেকে তাকে মেট্রোপলিটন হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছিল। কিন্তু আজ সকালে সকালের দিকে তার অবস্থার অবনতি হয় জানিয়ে স্বাচিপ নেতা ডা আ.ন.ম মিনহাজুর রহমান বলেন, ‘মেট্রোপলিটন হাসপাতালের একটি কেবিনে তাকে অক্সিজেন সাপোর্ট দিয়েই চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল। হঠাৎ সকালের দিকে তার অবস্থার অবনতি হয়। পরে আইসিইউতে নিয়ে ভেন্টিলেটর সাপোর্ট দেয়া হয় তাকে। আইসিইউতে নেয়ার ঘন্টা খানেকের মধ্যে তিনি মারা যান।’

এর আগে করোনা আক্রান্ত হয়ে গত ২১ মে থেকে চমেক হাসপাতালের একটি কেবিনে চিকিৎসাধীন ছিলেন ডা. সমির। অক্সিজেন স্যাচুরেশন কমে গেলে ২৬ মে তাকে চট্টগ্রামে প্রথম করোনা রোগী হিসেব প্লাজমা থেরাপি দেওয়া হয়। মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. অনিরুদ্ধ ঘোষের নেতৃত্বে ঢাকার বিশেষজ্ঞদের সাথে যোগাযোগ রেখে একটি বিশেষ মেডিকেল টিম গঠন করে তার চিকিৎসা দেওয়া হয়। করোনার চিকিৎসায় এখন পর্যন্ত আলোচিত সবগুলো চিকিৎসাই তার ক্ষেত্রে প্রয়োগ করা হয়।

উল্লেখ্য, চট্টগ্রামে এ পর্যন্ত নয়জন চিকিৎসক মারা গিয়েছেন। তাদের মধ্যে ছয়জন করোনা নেগেটিভ ছিলেন। তিনজন করোনা উপসর্গে ভুগে মারা গিয়েছেন।

নিউজনাউ/পিপিএন

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: