শুভ জন্মদিন মেসি ‘দ্য ম্যাজিশিয়ান’

নিউজনাউ ডেস্ক: আজকের এই দিনে রোজারিও সূর্য টা অন্য দিনের তুলনায় বেশি আলোকিত ছিলো । কারণটা ৩৩ বছর আগে আজকের দিনে রোজারিও শহরে জন্ম হয়েছিল এক রূপকথার। হোর্হে মেসি ও সেলিয়া কুচেত্তিনির সংসারে এসেছিল তৃতীয় সন্তান।

নাম তার লিওনেল আন্দ্রেস মেসি কুচেত্তিনি। পৃথিবীর সব মানুষকে তার পায়ের কারিশমা দেখিয়ে মুগ্ধ করে রেখেছেন। যার বাম পায়ের জাদুতে মোহাবিষ্ট পুরো পৃথিবী। তাঁর ড্রিবলিং যতটা দুর্বোধ্য, মানুষ তিনি ততটাই সরল।

চলতি শতাব্দীর সেরা খেলোয়াড়দের নাম জিজ্ঞেস করা হলে নিশ্চিতভাবেই উপরের দিকে থাকবেন মেসি। মাত্র ১৩ বছর বয়সে টিস্যু পেপারে চুক্তিবদ্ধ হন স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনার সাথে। এরপর থেকে বাকিটা কেবল মেসি, মেসি এবং মেসি।

তিনি একজন ভিনগ্রহের ফুটবলার, খেলেন প্লে-স্টেশনের নায়কের মতো, মর্তের সকল গুরুত্বপূর্ণ শিরোপাই তাঁর ঝুলিতে আছে। শুধু বাকি এখনো  একটি বিশ্বকাপ ট্রফি।

তাতে কি কিংবদন্তিদের ট্রফি দিয়ে বিচার করা যায়। কারণ এরকম মেসি শতাব্দীতে একজনই আসে। আর এ প্রজন্ম তো তাদের ভাগ্যবানই ভাবতে পারে। কারণ ক্ষুদে এই ফুটবল জাদুকরের খেলা যে তারা সামনে থেকে দেখতে পেরেছে।

গত দেড় যুগে বার্সেলোনার হয়ে জিতেছেন অসংখ্য শিরোপা। নিজে পৌঁছেছেন ফুটবলীয় শ্রেষ্ঠত্বের শিখরে। মেসি এবং বার্সেলোনা যখন সমার্থক শব্দে পরিণত হচ্ছিল, তখন স্পেনের জাতীয় দলে খেলার সুযোগ পেয়েও নিজ জন্মভূমি আর্জেন্টিনাকেই বেঁছে নিয়েছিলেন মেসি।

বার্সা সুপারস্টার তার গোল, মেডেল ও ম্যাজিক দিয়ে বারবার সোনার অক্ষরে ফুটবলের রেকর্ড পাতায় নিজের নাম লিখেছেন। ২০০৩ সালে পোর্তোর বিপক্ষে বার্সার হয়ে অভিষেক হয় , তারপর থেকে আজ পর্যন্ত স্মৃতিতে গেঁথে রাখার মতো মুহূর্ত উপহার দিয়ে যাচ্ছেন।

বার্সেলোনার হয়ে সাফল্যের শেষ নেই লিওনেল মেসির। দলীয় সাফল্যে ৯ বার লা লিগা চ্যাম্পিয়ন, ৪ বার চ্যাম্পিয়নস লিগ চ্যাম্পিয়ন, ৬ বার কোপা দেল রে চ্যাম্পিয়ন, ৭ বার স্প্যানিশ সুপার কাপ চ্যাম্পিয়ন, ৩ বার ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ ও ৩ বার উয়েফা সুপার কাপ জিতেছেন মেসি।

এছাড়া ব্যক্তিগত সাফল্যে ৬ বার ব্যালন ডি’অর, ৫ বার ইউরোপিয়ান গোল্ডেন বুট, ৩ উয়েফা বেস্ট প্লেয়ার ও ১৬ বার বার্সেলোনার সর্বোচ্চ গোলদাতা ফুটবল জাদুকর লিওনেল মেসি।

নিউজনাউ/টিএন/২০২০

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: