গ্রামীণ সড়কের বেহাল দশা ভোগান্তিতে এলাকাবাসী

খাদেমুল ইসলাম মামুন, ঘাটাইল প্রতিনিধি: টাংগাইলের ঘাটাইল উপজেলার লক্ষিন্দর ইউনিয়নের লক্ষিন্দর-বাঘাড়া বাজার- সাগরদীঘি পর্যন্ত ৬ দশমিক ১১ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের রাস্তাটি অত্র এলাকার একটি জনগুরুত্বপূর্ণ রাস্তা।

এই রাস্তার মধ্যে সাগরদিঘী বাজার থেকে বেইলা গ্রাম পর্যন্ত দুই কিলোমিটার রাস্তা পাকা, বাকী ৪ দশকিম ১১ কিলোমিটার রাস্তা মনতলা-টু-বাঘাড়া বাজার-টু-লক্ষিন্দর পর্যন্ত কাঁচা।

ফলশ্রুতিতে অসহনীয় জনদুর্ভোগ কমাতে মনতলা থেকে বাঘাড়া বাজার পর্যন্ত তিন কিলোমিটার রাস্তা পাকা করা খুবই প্রয়োজন বলে দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় এলাকাবাসী।

জানা যায়, বাঘাড়া বাজার টু সাগরদীঘি রাস্তাটি দিয়ে প্রতিদিন বাঘাড়া, মনতলা ও কাইকারচালাসহ আশেপাশের কয়েকটি গ্রামের শতশত মানুষ যাতায়াত করে।

শনিবার ও মঙ্গলবার সাগরদিঘী হাটের দিন বিধায় উক্ত দুই দিন প্রায় হাজার মানুষ এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করে।

কাঁচা তিন কিলোমিটার রাস্তা সংলগ্ন মনতলা ও বাঘাড়া গ্রামে একটি করে দুইটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। বাঘাড়া ও মনতলাসহ আশেপাশের গ্রামের প্রায় সকল ছেলেমেয়েরা সাগরদিঘী উচ্চ বিদ্যালয়, সাগরদিঘী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও সাগরদিঘী কলেজে লেখাপড়া করে। এখানকার শিক্ষার্থীদের প্রতিদিন এই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যেতে হয়।

বিকল্প কোনো রাস্তা না থাকায় বাঘাড়া, মনতলা ও কাইকারচালাসহ আশেপাশের কয়েকটি গ্রামের মানুষদের এই রাস্তা দিয়ে সাগরদিঘী বাজারে এসে তারপর জেলা সদরে আসতে হয়।

প্রায় পঁচিশ বছর পূর্বে নির্মিত এই রাস্তাটি শুরু থেকেই কাঁচা হওয়ায় ও দীর্ঘদিন যাবৎ মেরামত না করার ফলে রাস্তাটির খানাখন্দে বৃষ্টির পানি জমে চলাচলের সম্পূর্ণ অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।
বর্তমানে এ রাস্তা দিয়ে ট্রাক, এম্বুলেন্স, মাইক্রোবাস, টেম্পো প্রভৃতি যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

বাঘাড়া এলাকার রঞ্জিত জানান, “পূর্বে প্রতিদিন বাঘাড়া বাজার থেকে ট্রাকে করে কাঁচা সবজি ঢাকায় নেয়া হতো। কিন্তু বর্তমানে যানবাহনের অভাবে উৎপাদিত কাঁচামাল বাজারে নিতে না পারায় ও পূর্বের মত ঢাকায় রপ্তানি করতে না পারায় কৃষকরা উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। ফলে কৃষকের ফসল জমিতেই নষ্ট হচ্ছে। যানবাহন চলাচল না করার কারণে জরুরী অবস্থায় রোগী হাসপাতালে নেয়া যায়না বিধায় তাদের বিনা চিকিৎসায় মৃত্যুবরণ করার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

বর্তমানে রাস্তাটির বিভিন্ন স্থানে এমনই খানাখন্দ ও গর্তের সৃষ্টি হয়েছে যে যানবাহন তো দূরের কথা পায়ে হেটে চলা দুষ্কর হয়ে পড়েছে। সামান্য বৃষ্টি হলে এই রাস্তায় কাদা ও পানি জমে যায়। ফলে এই রাস্তায় চলাচল আরও ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যায়।

তাই মনতলা থেকে বাঘাড়া বাজার পর্যন্ত তিন কিলোমিটার রাস্তা পাকা করা খুবই জরুরী বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী। রাস্তাটি পাকা হলে এ এলাকার কয়েক হাজার মানুষের বহু দিনের কষ্ট দূর হবে বলে মনে করছেন স্থানীয় জনগণ।
নিউজনাউ/এফএফ/২০২০

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: