করোনাকালে ‘বিশ্বভরা প্রাণ’ এর সাংস্কৃতিক উদ্যোগ

শতদল তালুকদার, অস্ট্রেলিয়া থেকে:
পৃথিবীর প্রায় প্রতিটি দেশ যখন করোনা ভাইরাসের নির্মম ছোবলে অসহায়, শহরের পর শহর লকডাউনের ফলে মানুষের জীবন যখন অতিষ্ঠ ও হতাশাগ্রস্ত তখন একে অপরকে শক্তি ও সাহস যোগাতে “বিশ্বভরা প্রাণ” নিয়ে হাজির প্রবাসী বাঙালিরা। সংস্কৃতিমনা প্রবাসী বাঙালিদের উদ্যোগে এ মহতী প্রয়াশ। মানুষের এই পরিস্থিতি উপলব্ধি করে সংগঠনটি নিয়মিত উদযাপন করে যাচ্ছে অনলাইন লাইভ যার মাধ্যমে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা সারথিদের নিয়ে বিভিন্ন দিবস ও অনুষ্ঠান। বিশ্বব্যাপী রবীন্দ্র-নজরুল জয়ন্তী উদযাপনের ধারাবাহিকতায় বাংলার ঐতিহ্যমণ্ডিত ঋতু বর্ষাকে নিয়েও সাজিয়েছে বৈচিত্র্যমূলক অনুষ্ঠান।

জাহান বশীরের উপস্থাপনায় পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এ অনুষ্ঠানে যুক্ত হন অনেক প্রথিতদশা শিল্পী ও আবৃত্তিকার। অস্ট্রেলিয়ার সিডনি থেকে যুক্ত হন দেবী সাহা যিনি অস্ট্রেলিয়া শাখার সভাপতির দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি বাঙ্গালির শিল্প-সাহিত্যকে অস্ট্রেলিয়ায় সার্থকভাবে ফুটিয়ে তুলতে সর্বদা চেষ্টা করে যাচ্ছেন । তাছাড়া এখানকার জনপ্রিয় ভারতনৃত্যম ও ওডিসি নৃত্যশিল্পী শ্রেয়সী দাস নৃত্য পরিবেশনা করেন এবং কবি সৌমিক ঘোষ তার আবৃত্তির মূর্ছনায় সকলকে যেন কিছুক্ষণের জন্য যেন করোনা পরিস্থিকে বিস্মৃত করে ফেলেন।

আর বাংলাদেশ থেকে যুক্ত হন নারী জাগরণের অন্যতম ব্যক্তিত্ব আশালতা সাহা । তিনি যে আজীবন মানুষকে সহযোগিতা করার ব্রত নিয়ে চলেছেন বিশেষ করে দুঃস্থ নারীদের কর্মমূখী করতে যে সব পদক্ষেপ নিয়েছিলেন তা শেয়ার করে সকলের দৃষ্টি কেড়েছেন।

অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে যুক্ত হন ভারতের শিল্পীবৃন্দ যাদের পরিবেশনা ছিলো মনোমুগ্ধকর। এ ছাড়া আমেরিকা থেকে যুক্ত হয়ে শিল্পীরা রাঙিয়ে দিয়েছেন সকলকে। সব মিলিয়ে এ অনুষ্ঠানটি মিলন মেলায় রূপান্তরিত। মানুষ কিছু সময়ের জন্য হলেও ভুলে যায় করোনা আতঙ্ক। সবশেষে পৃথিবীর সকল জীবের কল্যাণ কামনা এবং করোনাকালে নিজ নিজ সাবধানতাকে গুরত্ব দেওয়া হয় ।

নিউজনাউ/এসএ/২০২০

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: