সবাইকে ছাপিয়ে ঢাকা-১০ আসনে মহিউদ্দিন!

মাহমুদুল হাসান: ঢাকা-১০ আসনের সংসদ সদস্যের পদ থেকে পদত্যাগ করে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে লড়ছেন ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। এরই মধ্যে আসনটি শূন্য ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। বিধান অনাযায়ী আসন শূন্য হওয়ার তিন মাসের মধ্যে নির্বাচন করতে হবে।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ এ বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত না নিলেও রাজনৈতিক অঙ্গনে এরই মধ্যে শুরু হয়েছে নানা আলোচনা। কে হচ্ছেন তাপসের আসনে নৌকার মাঝি?

ঢাকা-১০ আসনটিতে থেকে শেখ পরিবারের সদস্য শেখ ফজলুল হক মনির ছেলে তাপস নির্বাচিত হওয়ায় বারবার ঘুরে ফিরে আসছে বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্যদের নাম। আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্র থেকে জানা গেছে, ঢাকা-১০ আসন উপ-নির্বাচনে আলোচনায় রয়েছেন বঙ্গবন্ধুর দুই দৌহিত্র সজীব ওয়াজেদ জয় ও রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ববি। অবশ্য সজীব ওয়াজেদ জয় ও মুজিব সিদ্দিক ববি এখনই জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হতে আগ্রহী নন বলেও অন্য আরেক সূত্র জানিয়েছে।

এই আসনে প্রার্থী হিসেবে তাপসের সহধর্মীণী আফরিন তাপসের নামও চাউড় রয়েছে রাজনীতির মাঠে। আসনটিতে দলীয় প্রার্থী হিসেবে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানকের নামও শোনা যাচ্ছে। যদিও তার ঘনিষ্ঠরা বলছেন, নানক নিজে প্রার্থী হওয়ার কোনো আগ্রহ দেখাননি।

তবে এসব কিছু ছাপিয়ে বেশ জোরেশোরেই আলোচনায় যুক্ত হয়েছেন ব্যবসায়ী-শিল্পপতিদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশন-এফবিসিসিআইর সাবেক সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিনের নামও। আওয়ামী লীগ সূত্র জানিয়েছে, সবকিছু ঠাক-ঠাক থাকলে শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিনকেই দেখা যাবে ঢাকা-১০ আসনে নৌকার মাঝি হিসেবে।

সিটি নির্বাচন পরেই ঢাকা-১০ আসন নিয়ে চিন্তা-ভাবনা করা হবে বলে দলীয় সূত্র থেকে জানা গেছে। ঢাকা-১০ আসন নানা বিবেচনায় আলোচিত ও গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে দেখছে ক্ষমতাসীন আওযামী লীগ। সে কারণে তুলনামূলকভাবে স্বচ্ছ, প্রভাবশালী ও ব্যক্তিত্বসম্পন্ন প্রার্থী দেওয়ার বিষয়ে ভাবছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

সংবিধানের ১২৩ এর (৪) অনুচ্ছেদ অনুসারে, ‘সংসদ ভাঙ্গিয়া যাওয়া ব্যতীত অন্য কোনো কারণে সংসদের কোনো সদস্যপদ শূন্য হইলে পদটি শূন্য হইবার নব্বই দিনের মধ্যে উক্ত শূন্য পদ পূর্ণ করিবার জন্য নির্বাচন অনুষ্ঠিত হইবে’।

নিউজনাউ/২০২০

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান