দক্ষিণ সিটিতে সম্রাটের প্রভাব

মাহমুদুল হাসান : ক্যাসিনো কেলেঙ্কারিসহ নানা অপারধের অভিযোগে যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের বহিষ্কৃত সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাট এখন কারাগারে। এরই মাঝে ঢাকা দুই সিটি নির্বাচনের দামামা বাজতে শুরু করেছে। ভোটের মাঠে উত্তাপ ছড়িয়ে পড়েছে। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি সম্রাটকে নিয়ে। কারাগারে থেকেও কি তিনি নির্বাচনের মাঠে প্রভাব রাখছেন?
বিশেষকরে দীর্ঘদিন ধরে তিনি যে নিজস্ব কর্মী বাহিনী গড়ে তুলেছিলেন, নির্বাচনী মাঠে সেই কর্মী বাহিনীর অবস্থানই বা কি? প্রশ্নগুলো বারবার ঘুরে ফিরে আসছে।

সম্রাট গ্রেপ্তারের পর তার বাহিনী বিভিন্ন সময়ে সম্রাটের মুক্তির দাবিতে রাজধানীতে পোস্টারিংসহ নানা কর্মকাণ্ড চালিয়েছে। সম্রাটের কর্মীরা এখনো ক্রিয়াশীল।

এর আগে শুদ্ধি অভিযানের সময় সম্রাট ইস্যুতে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শেখ ফজলে নূর তাপস সম্রাটকে দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছিলেন।

বিষয়টি সম্রাট কর্মী-সমর্থকরা ভালভাবে নেয়নি বলে অনেকে ধারণা করছে। আর এটি এখন চায়ের কাপের আলোচনার খোরাক জুগিয়েছে। তাহলে কি সম্রাট সমর্থক বা কর্মীরা তাপসের বিরুদ্ধে নির্বাচনের মাঠে নামবে এ নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে আলাপ-আলোচনা চলছে।

আবার স্থানীদের কেউ কেউ মনে করছেন সম্রাটের নিজস্ব বাহিনী থাকলেও তাপসের বড় ভাই শেখ ফজলে শামস পরশ যুবলীগের সভাপতি হওয়ার কারণে সম্রাটের কর্মীরা তাপসের পক্ষেই কাজ করবে। যুবলীগ ঐক্যবদ্ধভাবেই তাপসের পক্ষে কাজ করবে বলেও ধারানা তাদের।

তাপসের ঘনিষ্ঠজনেরা মনে করছেন, যেহেতু দুর্নীতিবাজদের সাথে তাপসের কোন সম্পর্ক নাই; সেকারণে নির্বাচনী মাঠে তাপসের কোন নেতিবাচক প্রভাব পড়বে না। স্বচ্ছ আর ক্লিন ইমেজের প্রার্থীতাই তাপসকে এগিয়ে রাখবে বলে্ও মনে করেছেন দক্ষিণ সিটির ভোটাররা।

নিউজনাউ/২০২০

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান