NewsNow24.Com
Leading Multimedia News Portal in Bangladesh

বিশ্বজুড়ে চলছে ইংরেজি নববর্ষ উদযাপন

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

নিউজ ডেস্কঃ ইংরেজি নতুন বছর ২০২০কে বরণ করে নিতে বিশ্বের নানা প্রান্তে চলছে বর্ণিল আয়োজন। নতুন বছর নতুন বার্তা নিয়ে দোরগোড়ায় হাজির ইংরেজি নতুন বছর-২০২০ সাল। নানা বর্ণিল আয়োজনে নতুন বছর বরণ উৎসবে মাতোয়ারা গোটা বিশ্ব। পিছিয়ে নেই বাংলাদেশও। বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশেও এখন ঘটা করে ইংরেজি নতুন বছরকে বরণ করে নেয়া হয়।

দেশে দেশে নিজস্ব ভাষা-সংস্কৃতি অনুযায়ী ইংরেজি নতুন বছরের উৎসবে নানা বৈচিত্র থাকে। নিজেদের চিরাচরিত ঐতিহ্যে মানুষ স্বাগত জানায় নতুন বছরকে। হাজার বছর ধরে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে নানা আচার, প্রথা, রীতি ও ধর্মীয় সংস্কারের ভিত্তিতে উদযাপন করা হয় এ উৎসব। কালের বিবর্তনে এতে নানা পরিবর্তন-পরিমার্জন ঘটেছে।এটিই একমাত্র উৎসব যা পুরো বিশ্বে উদযাপন করা হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা ও রাশিয়াসহ ইউরোপ ও এশিয়ার বিভিন্ন দেশের ঐতিহ্যবাহী সব স্থাপনা ও পর্যটন কেন্দ্রগুলোকে সাজানো হয়েছে ঝলমলে আলোকসজ্জায়।

নিউইয়র্কের টাইমস স্কয়ার সাজানো হচ্ছে রঙ বেরঙের আলোকসজ্জায়। এছাড়াও দেশটির বিভিন্ন শহরে থাকছে চোখ ধাাঁধানো সব আয়োজন। যুক্তরাজ্যেও চলছে জামকালো আয়োজনের প্রস্তুতি। থার্টি ফার্স্টের রাতে টেমস নদীর উপরে থাকবে আতশবাজির উৎসব। আতশবাজীর প্রদর্শনী চলবে সিডনিতেও।

যুক্তরাষ্ট্রে জাঁকজমক আয়োজনে নতুন বছরকে বরণ করা হয়। নিউইয়র্ক সিটির টাইমস স্কয়ারে সবচেয়ে জমকালো আয়োজনে পালিত হয় খ্রিষ্টীয় নববর্ষ। জিরো আওয়ারে হাজার হাজার মানুষ জড়ো হয়ে স্বাগত জানায় ইংরেজি নতুন বছরকে। এতে যোগ দেন বিভিন্ন দেশের পর্যটকরাও। ঐতিহ্যগতভাবে ক্রিস্টাল বল ফেলে নববর্ষের প্রথম প্রহরটিকে উদযাপন করা হয়। নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে নিউইয়র্ক সিটি।

লন্ডনে বিগ বেনে ৩১ ডিসেম্বর রাত ১২টা নাগাদ সংকেত দিলেই টেমস নদীর আকাশ ছেয়ে যায় আতশবাজির ঝলকে। তবে আন্তর্জাতিক মান সময়ের তারতম্যের কারণে বিশ্বের প্রথম শহর হিসেবে নতুন বছরকে বরণ করার সুযোগ পায় নিউজিল্যান্ডের অকল্যান্ড শহর। ঘড়িতে স্থানীয় সময় রাত ১২টা বাজতেই প্রায় এক হাজার ফুট উচ্চতার স্কাই টাওয়ারের বর্ণিল আতশবাজির মধ্য দিয়ে নতুন বছরকে বরণ করে নিউজিল্যান্ডবাসী।

ঘড়ির কাঁটায় ১২টা বাজার সঙ্গে সঙ্গেই চোখ ধাঁধানো আতশবাজি আর বর্ণিল আলোকসজ্জার মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় দেশে হিসেবে নতুন বছরকে বরণ করে অস্ট্রেলিয়া। ঐতিহ্যবাহী সিডনি হারবারের মনোমুগ্ধকর আতশবাজি উপভোগ করতে আগে থেকেই জড়ো হয় হাজার হাজার মানুষ। মেতে উঠে উৎসবে।

এছাড়াও স্পেন, ফ্রান্স, ডেনমার্ক, রাশিয়াসহ ইউরোপ ও এশিয়ারচীন,থাইল্যান্ড,সহ বিভিন্ন দেশে নতুন বছরকে বরণ করে নিতে চলছে মনোমুগ্ধকর প্রস্তুতি। কনসার্টের আয়োজনও করা হয়েছে বিভিন্ন দেশে। যেকোন ধরনের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে দেশে দেশে নেয়া হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

নিউজ/বান্না/২০১৯

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আপনার মতামত জানান

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More