NewsNow24.Com
Leading Multimedia News Portal in Bangladesh

দল ও সরকারের মাঝে রেখা টানছে আওয়ামী লীগ

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

মাহমুদুল হাসান :

বাংলাদেশের ইতিহাসে টানা তিনবার ক্ষমতায় থাকার রেকর্ডের খাতায় নাম লিখিয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। আর টানা নবমবারের মতো আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে নির্বাচিত হন শেখ হাসিনা। তাঁর দূরদর্শী নেতৃত্বের গুণে ক্ষমতায় আওয়ামী লীগ। আবার গণতান্ত্রিক ধারা ধরে রেখে বঙ্গবন্ধু কন্যার হাত ধরেই দেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের ছোঁয়াও লেগেছে।

উপমহাদেশের সবচেয়ে পুরাতন রাজনৈতিক সংগঠন আওয়ামী লীগ দলের ভেতরেও গণতান্ত্রিক ধারা ধরে রাখতে চায়। তাই ২১তম জাতীয় সম্মেলনে পরিবর্তনের ছোঁয়া আনলো দলটি। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির ৮১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটির মোট ৭৪ জনের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। তাতে বাদ পড়েছেন ৯ মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রী। দল ও সরকারকে আলাদা করতেই প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা এমন পদক্ষেপ নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

অবশ্য ক্ষমতাসীন দলের ৮১ সদস্যের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সাতটি পদে এখনও কারও নাম ঘোষণা করা হয়নি। তবে এতে মন্ত্রিসভার বাদ পড়া সদস্যদের অন্তর্ভুক্তির কোনো সম্ভাবনা নেই বলেই দলীয় সূত্রগুলো নিশ্চিত করেছে। কেননা আগের কমিটিতে তারা যেসব পদে ছিলেন, সেসব পদের আগে-পরে নতুন মুখ আনা হয়েছে। তাই ফাঁকা পদগুলো গুরুত্বের বিবেচনায় একেবারেই গৌণ।

এছাড়া, এবারের কমিটিতে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক নারী সদস্যও এসেছেন। ঘোষিত ৭৪ জনের মধ্যে নারী রয়েছেন ১৯ জন। শতকরা হিসেবে যা দাঁড়ায় ২৫ দশমিক ৬৭ শতাংশ। যা গণপ্রতিনিধিত্ব অধ্যাদেশ অনুযায়ী রাজনৈতিক দলগুলোর কমিটিতে ৩৩ শতাংশ নারী রাখার বাধ্যবাধকতার নির্দেশনার বাস্তবায়নের দিকে অনেকটা এগিয়ে গেল আওয়ামী লীগ।

দলীয় সুত্র জানিয়েছে, দল ও সরকারকে আলাদা করার কারণে দেশ পরিচালনায় যেমন গতি আসবে, তেমনি সাংগঠনিকভাবেও আওয়ামী লীগ আরও শক্তিশালী হবে। আগামীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছেন তা বাস্তবায়ন করতে আরও সহজ হবে বলে মনে করছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা।
অন্যদিকে, দলের ভেতরে শুদ্ধি অভিযান চলছে তাতেও গতি আসবে। ফলে দলে অনুপ্রবেশকারীদের পথ রোধ হওয়ার পাশাপাশি দলের ভেতরে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা বাড়বে। একই সাথে দলের ভেতরে গণতান্ত্রিক ধারার চর্চার পথ আরও সুগম হবে বলে মনে করছেন তাঁরা। ফলে তরুনদের মাঝে আগামীর যোগ্য নেতৃত্ব বেড়িয়ে আসবে। ফলে আওয়ামী লীগের প্রতি জনগণের আস্থা আরও বাড়বে। যা উপমহাদেশের রাজনীতিতে একটি মাইল ফলক হয়ে থাকবে বলেও মনে করছেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা

নিউজ নাউ / হাসান/ ২০১৯

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আপনার মতামত জানান

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More