বৃষ্টির দিনে কান্না

শাহরিয়ার শাকিব:

চারিদিকে ঘোর অন্ধকার। আকাশে চাঁদ নেই। আবহাওয়া বলে দিচ্ছে, বৃষ্টি হবে। মোমবাতি বাতাসে নড়েচড়ে উঠছে। কে জানে! কবে না জানি নিভে যায় সে প্রদীপ। শুভ ঘুমিয়ে আছে। এতক্ষণ তো তার ঘুমানোর কথা না? ভোরের কোনো দেখা নেই, ঘড়ির ব্যাটারি নষ্ট অনেক দিন থেকে, যখন সে বাজারে যায়। ব্যাটারি কিনে আনবার কথা বলতে ভুলে যান মলিক খাতুন। মানুষের বয়স বাড়ার সাথে সাথে স্মৃতি শক্তি কমিয়ে আসে। তবে, উনার তো এখনো কোনো কিছু ভুলে যাওয়ার মত বয়স হয়নি। ৩০-৩৫ কিংবা তার চেয়ে একটু বেশি বয়স হতে পারি। এ বয়সে তো এমন হওয়ার কথা না। তবে কি, তিনি কোনো অসুখে ভুগছেন? পরপর মনে হলো, তিনি অযু করেছিলে। নামাজ পড়েছেন কিনা তা এখন ভুলে গেছেন। ভাবতে গিয়ে খেয়াল হলো হাতের দিকে, অযুর পানি এখনো শুকায় নি। তার মানে এখনো তিনি নামাজ পড়েন নি? চারিদিক কিছুটা অন্ধকার কাটিয়ে উঠেছে। প্রকৃতি বলে দিচ্ছে যে নামাজে সময় খুব নিকটে। আকাশ ভেঙে বৃষ্টি নেমেছে। পরপর টিনের চালে টুপটুপ বৃষ্টি ফোঁটার শব্দ শুভ কে ঘুমাতে দেয়নি। মলিকা বেগম হঠাৎ আঁতকে উঠলেন, তিনি একি করছেন? শেষমেষ “মহান রাব্বুল আলামিন” কে ভুলে বসতে বসেছেন। এ কি সর্বনাশ! শুভ ঝটপট বেরিয়ে পড়লো। কোথায় যাচ্ছে। কিছু বলে যায়নি। যত বড় হচ্ছে ছেলেটা তত বদলে যাচ্ছে। মাঝে মাঝে মলিকা বেগম হকচকিয়ে যান। এই যেমন- গত পরশু বললো “মা” তোমাকে খুব ভালোবাসি। মলিকা বেগম কথাগুলো শুনে হাসির বদলে খুব কাঁদলেন। কোনো কাঁদলেন? কে জানে! ছেলে কি আসলেই তাকে ভালোবাসে? মলিকা বেগম কাঁদছেন। বৃষ্টির জোড় তত বাড়ছে।

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
1
+1
0
+1
1
আপনার মতামত জানান