নতুন কমিটিতে চট্টগ্রাম মহানগরী ফাঁকা!

বিশেষ প্রতিনিধি: বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সদ্য ঘোষিত কেন্দ্রীয় কার্যনিবাহী কমিটিতে চমক থাকেলেও বিপত্তি হয়েছে এবার মহানগরীতে কোন নেতা স্থান পাননি। ঘোষিত আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদে সাংগঠনিক জেলা চট্টগ্রাম উত্তর ও দক্ষিণে পাঁচ নেতাকে গুরুত্বপূর্ণ পদ দেওয়া হলেও এক্ষেত্রে পদবঞ্চিত হয়েছে মহানগর।
স্বাধীনতার পর চট্টগ্রাম মহানগর থেকে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের কমিটিতে জহুর আহমেদ চৌধুরী, অধ্যাপক পুলিন দে ও মহিউদ্দিন চৌধুরীর মতো নেতারা ভিন্ন ভিন্ন মেয়াদে দায়িত্ব পালন করেছেন।কিন্তু আগের কমিটিতে মহানগর থেকে মহিউদ্দিনপুত্র মহিবুল হাসান নওফেলকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে যেমনি চমক দেওয়া হয়েছিল তেমনি এবার তাকে বাদ দেওয়াটাও চমক হিসেবে দেখছেন নেতাকর্মীরা।
উত্তর ও দক্ষিণে প্রেসিডিয়াম সদস্য থেকে শুরু করে উপ প্রচার সম্পাদকের পদ পর্যন্ত একে একে পাঁচ জন নেতাকে কেন্দ্রীয় কমিটিতে স্থান দেওয়া হলেও মহানগর থেকে ঠাঁই পাননি কেউই! এ নিয়ে নগরীর নেতাকর্মীদের মাঝে হতাশা দেখা দিয়েছে।
ভৌগলিক রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক কারণে বাংলাদেশের রাজনীতিতে বরাবরই গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানে বন্দর নগরী চট্টগ্রাম। কিন্তু এই নগরী থেকে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে স্থান দেওয়া হয়নি কাউকই। বরং আগের কমিটিতে থাকা মহিউদ্দিনপুত্র কোতোয়ালীর সাংসদ শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলকে উল্টো বাদ দেওয়া হয়েছে৷ তাকে বাদ দিলেও নগরী থেকে আর কাউকেও কমিটিতে রাখা হয়নি। এ নিয়ে দলীয় সভানেত্রীর সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে প্রকাশ্যে মন্তব্য করতে না চাইলেও মহানগরীর অনেক নেতাকর্মী নিজেদের হতাশার কথা জানিয়েছেন। যদিও বা সরকারের মন্ত্রীসভাতে চট্টগ্রাম থেকে যে তিনজনের স্থান হয়েছে সেখানে উত্তর থেকে তথ্যমন্ত্রী হিসেবে ড. হাছান মাহমুদ, দক্ষিণ থেকে ভূমিমন্ত্রী হিসেবে সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ ও মহানগরী থেকে শিক্ষা উপমন্ত্রী হিসেবে মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলকে স্থান দিয়ে ব্যালেন্স করা হয়েছিল৷
সদ্য ঘোষিত কেন্দ্রীয় কমিটিতে চট্টগ্রাম উত্তর জেলার মিরসরাই থেকে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম মেম্বার হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। যুগ্ম সম্পাদক হিসেবে রাঙ্গুনিয়ার সাংসদ ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ কেন্দ্রীয় কমিটিতে স্থান করে নিয়েছেন।একইভাবে দক্ষিণ জেলা থেকেও দপ্তর সম্পাদক হিসেবে লোহাগড়ার সন্তান ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, অর্থ ও পরিকল্পনা সম্পাদক হিসেবে আনোয়ারার সন্তান প্রয়াত আতাউর রহমান কায়সারের মেয়ে ওয়াসিকা আয়েশা খান এমপি কেন্দ্রীয় কমিটিতে স্থান করে নিয়ে চমক দেখিয়েছেন। এ দুজনের পাশাপাশি সাতকানিয়ার আমিনুল ইসলাম আমীনকে উপ প্রচার ও প্রকাশনা পদেই বহাল রাখা হয়েছে।

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান