মুড়ির যত গুণাগুন

নিউজনাউ ডেস্ক: আমাদের দেশে মুড়ি খায় না এমন মানুষ পাওয়া অনেকটাই অসম্ভব। মুড়ি কমবেশি সবাই খেয়ে থাকে। কেউ চা দিয়ে, কেউ গুড় দিয়ে, কেউ খেজুর দিয়ে, সেমাই দিয়ে। শুধু মুড়ি খাওয়া পছন্দ করে অনেকে। সকালের নাস্তা বা বিকালের নাস্তায় মুড়ি খাওয়া হয়। ঝালমুড়ি মাখা পছন্দ নয় এমন লোক কমই আছে। মুড়ি অনেকের কাছে স্বাচ্ছন্দ্যের। কিন্তু মুড়ি খাওয়ার স্বাস্থ্য উপকারিতা জানেন কি?

চিকিৎসকরা বলছেন, একমুঠো মুড়ির গুণ একটি ওষুধের গুণের সমান! উপকরণটির মধ্যে থাকা পুষ্টিগুণ সারিয়ে ফেলতে পারে বিভিন্ন রোগ!

ইউরিক অ্যাসিডের পরিমাণ বাড়িয়ে দিতে পারে মুড়ি। তাই অনেকেই মুড়ি এড়িয়ে চলেন। কিন্তু মুড়ির গুণও নেহাত কম নয়। প্রতিদিন মুড়ি খেলে ক্ষতির চেয়ে লাভের সম্ভাবনাই বেশি। মুড়ি শুধু স্বাদের জন্যই নয়, এর উপকারিতাও আছে অনেক।

মুড়ির নানা উপকারিতা জানলে হয়তো এটি খাওয়ার জন্য প্রতিদিন অভ্যাসই করে ফেলবেন। তাহলে জেনে নিন মুড়ির কী কী গুণ রয়েছে?

গ্যাস্ট্রিক সমস্যা সমাধান: চিকিৎসকদের মতে, মুড়ি খেলে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা অনেক কমে যায়। নিয়মিত মুড়ি খেলে পেটে অ্যাসিডের ক্ষরণে ভারসাম্য আসে। বাড়াবাড়ি রকমের অ্যাসিড হলে, মুড়ি পানিতে ভিজিয়ে খান অনেকে। তাতে দ্রুত অ্যাসিডের সমস্যা কমে।

হাড় মজবুত করে: মুড়িতে রয়েছে ক্যালসিয়াম আর আয়রন। এ ছাড়া মুড়ি চিবিয়ে খেতে হয়। এর ফলে দাঁত ও মাড়ির একটা ব্যায়াম হয়। তাই নিয়মিত মুড়ি খেলে হাড় ও দাঁত মজবুত হয়।

ওজন নিয়ন্ত্রণ: মুড়িতে ক্যালোরির মাত্রা অত্যন্ত কম। অল্প ক্ষুদা পেলে মুড়ি খেলে পেট ভরে যায়। ক্যালোরির মাত্রা কম বলে মুড়ি খেলে ওজন বাড়ে না। যারা হালকা খাবার হিসেবে নিয়মিত মুড়ি খান, তাদের পক্ষে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা সহজ।

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ: প্রতিদিন মুড়ি খেল নিয়ন্ত্রণে থাকতে পারে আপনার রক্তচাপও। এতে সোডিয়ামের মাত্রা কম। ফলে এটি খাওয়ার পরে পেট ভরলেও রক্তচাপ বাড়ে না। এ ছাড়া যাদের পেটের সমস্যা আছে, তাদের ক্ষেত্রে মুড়ি বিশেষ উপকারী।

নিউজনাউ/এবি/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান