ব্যাটে-বলে অসহায় আত্মসমর্পণ বাংলাদেশের

নিউজনাউ ডেস্ক: টি-টোয়েন্টিতে প্রথমবারের দেখায় ইংল্যান্ডের কাছে পাত্তাই পেল না বাংলাদেশ। ব্যাট বলের দুই ডিপার্টমেন্টেই একেবারে অসহায় আত্মসমর্পণ করেছে টিম টাইগার্স। । টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ইংল্যান্ডের কাছে ৩৫ বল আগে ৮ উইকেটের ব্যবধানে হারল বাংলাদেশ।

প্রথম ব্যাটিং করে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৯ উইকেট হারিয়ে এই সংগ্রহ গড়ে মাহমুদউল্লাহ বাহিনী।

বাংলাদেশের দেওয়া ১২৫ রানের মামুলি লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই চড়াও ইংলিশ ওপেনাররা। ইনিংসের ৫ম ওভারে নাসুম আহমেদের বলে মোহাম্মদ নাইমের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন জশ বাটলার। আউট হওয়ার আগে ১৮ বলে ১৮ রান করেন বাটলার।

বাটলার আউট হয়ে ফিরলেও উইকেটের অপর প্রান্তে চার ছয়ের ফুলঝুরি ঝড়াতে থেকেন জেসন রয়। ইনিংসের ১২তম ওভারের ৪র্থ বলে নাসুমকে ছক্কা হাঁকিয়ে ৩৩ বলে নিজের অর্ধশতকপূর্ণ করেন জেসন রয়। পরের ওভারে শরিফুলকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে আউট হন জেসন রয়।

তবে আউট হওয়ার আগে দলকে জয়ের কাছে পৌঁছে দেন জেসন রয়। পাঁচটি চার আর ৩টি ছয়ে ৩৮ বলে ৬১ রান করেন জেসন রয়। এই ইংলিশ ওপেনারের উইকেট নেওয়ার মাধ্যমে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অভিষেকেই উইকেট ঝুলিতে পুরলেন শরিফুল।

রয় ফেরার পর বাকি কাজটা সারেন দাভিদ মালান এবং জনি বেয়ারেস্টো। শেষ পর্যন্ত ১৪.১ ওভারে ৮ উইকেট হাতে রেখে জয় তুলে নেয় ইংল্যান্ড। মালান ২৫ বলে ২৮ এবং বেয়ারেস্টো ৪ বলে ৮ রান করে অপরাজিত থাকেন।

এর আগে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা লিটন ব্যর্থতার সেই তিমিরেই রয়ে গেলেন। সমালোচনার পরও দলে টিকে ছিলেন কিন্তু ফিরে গেছেন ৯ রান করে। উপহার দিয়েছেন নিজের ‘প্রতিভাবান’ উইকেটটি। উদ্বোধনী জুটির সঙ্গীকে হারানোর পর একটি বলও টিকলেন না মোহাম্মদ নাঈম শেখ। তিনিও উইকেট উপহার দিয়ে এলেন মঈন আলিকে। লিটনের বিদায়ের পরের বলেই ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে মইনকে উড়িয়ে মারেন নাঈম। টাইমিং না মেলায় আউট নাঈমও। মিড অনে সহজ ক্যাচ নেন ক্রিস ওকস। নাঈম আউট ৭ বলে ৫ রানে। বাংলাদেশ ২.৩ ওভারে ২ উইকেটে ১৪। তবে পাওয়ার প্লের শেষ ওভারে আদিল রশিদের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন সাকিব আল হাসান। এতেই ২৬ রানে তৃতীয় উইকেট হারায় বাংলাদেশ। আউট হওয়ার আগে ৭ বলে ৪ রান।

এরপর দলের হাল ধরেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ এবং অভিজ্ঞ মুশফিকুর রহিম। চতুর্থ উইকেটে রিয়াদ-মুশির জুটি থেকে আসে ৩৭ রান। বাংলাদেশের হয়ে এদিন ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রান আসে মুশফিকুর রহিমের ব্যাট থেকে। ৩০ বলে ২৯ রান করে লিভিংস্টোনের বলে রিভার্সসুইপ করতে গিয়ে এলবিডাব্লিউ হয়ে ফেরেন মুশি। এরপর মাহমুদউল্লাহ এবং আফিফ জুটি গড়ার চেষ্টা করলেও রান আউটে কাটা পড়ে আফিফ ফেরেন (৫) দলীয় ৭৩ রানে। এরপর আর বেশি সময় উইকেটে থাকেননি অধিনায়ক রিয়াদও। লিভিংস্টোনকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন তিনিও। আউট হওয়ার আগে রিয়াদ ২৪ বলে ১৯ রান করেন।

শেষ দিকে মাহেদি হাসান ১১, নুরুল হাসান সোহান ১৮ বলে ১৬ আর নাসুমের ৯ বলে ১৯ রানের ক্যামিওতে বাংলাদেশের সংগ্রহ দাঁড়ায় ১২৪ রান। ইংলিশদের হয়ে দুটি করে উইকেট নেন মইন আলী, লিভিংস্টোন এবং টাইমাল মিলস। এছাড়াও একটি উইকেট নেন ক্রিস ওকস।

নিউজনাউ/পিপিএন/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান