প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বাড়বে নজরদারি

নিউজনাউ ডেস্ক: চলতি বছরের এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা চলাকালে ফেসবুক, টুইটার, হোয়াটসঅ্যাপসহ সব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কড়া নজরদারি করা হবে। কোনো আইডিতে সন্দেহ হলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মনিটরিং করবে।

বুধবার (২৭ অক্টোবর) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে এসএসসি পরীক্ষার নিরাপত্তা সংক্রান্ত এক বৈঠকে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সভা সূত্রে জানা গেছে, এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা শুরুর এক সপ্তাহ আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কড়া নজরদারি শুরু করা হবে। কেউ যেন প্রশ্নপত্র ফাঁস করা বা তার গুজব ছাড়াতে না পারে সেসব বিষয় মনিটরিং করা হবে। মোবাইল ব্যাংকিংয়ের ওপরও নজরদারি করা হবে। কোনো অ্যাকাউন্টে অস্বাভাবিক লেনদেন হলে সেটি বন্ধ করে খতিয়ে দেখা হবে। বিশেষ করে ফেসবুক, টুইটার, হোয়াটসঅ্যাপে নজরদারি বসানো হবে। কোনো আইডি থেকে গুজব ছাড়ালে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাকে আটক করবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে কোনো আইডিতে সন্দেহ হলে তাকে নজরদাবির আওতায় আনা হবে।

পরে এ পরীক্ষার সার্বিক প্রস্তুতির বিষয়ে জানতে চাইলে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেন, এসএসসি-সমমান পরীক্ষা সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে শেষ করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে সভা হয়েছে। সেখানে বিভিন্ন বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে। পরীক্ষা চলাকালে কেউ যদি প্রশ্নফাঁস ও তার চেষ্টা করে অথবা এ ধরনের গুজব ছড়ায় তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এজন্য আমাদের কঠোর নজরদাবি থাকবে। কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ পেলে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে।

আরেক প্রশ্নের উত্তরে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, পাবলিক পরীক্ষায় অভিভাবকরা এসে পরীক্ষা কেন্দ্রের সামনে ভিড় জমান, এবার সেটি হতে দেওয়া যাবে না। পরীক্ষার্থী কেন্দ্রে একা আসলে ভালো হয়। নতুবা অভিভাবক আসলেও একজন আসবেন। সন্তানকে কেন্দ্রের ভেতরে দিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দূরে অপেক্ষা করতে হবে। কোনোভাবে গেটের সামনে ভিড় করা যাবে না। পরীক্ষা কেন্দ্রে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। তিন ফুট দূরত্ব বাজায় রেখে শিক্ষার্থীদের কেন্দ্রে বসতে হবে। কোনোভাবেই স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘন করা যাবে না বলে জানান তিনি।

নিউজনাউ/এসএ/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান