এক গ্রিভসের সাথেই পেরে উঠল না বাংলাদেশ

নিউজনাউ ডেস্কঃ একা একজন স্কটিশ গ্রিভসের কাছেই হার মানলো বাংলাদেশ! কি বোলিং, কি ব্যাটিং, ক্রিস গ্রিভসের অলরাউন্ডার নৈপুণ্যে স্কটল্যান্ড দেয়াল ভাঙতে পারলো না লাল সবুজের বাংলাদেশ।

স্কটিশদের বিপক্ষে এনিয়ে টি-টোয়েন্টিতে দুবারের দেখায় প্রতিবারই হার দেখল বাংলাদেশ। এবার ৬ রানের হার দিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরু করল মাহমুদউল্লাহ বাহিনীরা।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) ওমানের আল আমেরাত ক্রিকেট গ্রাউন্ডে স্কটল্যান্ডের মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ। এদিন টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

শুরুতে জর্জ মানজির কার্যকারী এক ইনিংসের পর ক্রিস গ্রিভসের শেষের ঝড়ে ১৪০ রানের সংগ্রহ গড়েছিল স্কটল্যান্ড। টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং করতে নেমে দ্বিতীয় ওভারে প্রথম উইকেটের দেখা পায় বাংলাদেশ। সাইফউদ্দিনের ইয়র্কার সামলাতে না পেরে ৭ বল খেলে শূন্য রানে বিদায় স্কটল্যান্ড অধিনায়ক। এরপর শক্ত একটা জুটি গড়ে তুলেছিলেন ম্যাথু ক্রস ও জর্জ মানজি। দ্বিতীয় উইকেটে তাদের জুটি ছিল ৪০ রানের।

অষ্টম ওভারে শেখ মেহেদী বোলিংয়ে এসেই জোড়া আঘাত আনেন। শিকার বানান জর্জ মুন্সি ও ম্যাথিউ ক্রসকে। উইকেটরক্ষক ব্যাটার ক্রস ১১ ও ২৯ রান করে আউট হন জর্জ।

এরপর দৃশ্যপটে সাকিব আল হাসান। ইনিংসের ১১তম ওভারে জোড়া আঘাত হানেন তিনিও। আউট করেন রিচি বেরিংটন (২) ও মাইকেল লিস্ককে (০)। এই দুই উইকেট তুলে বিশ্বরেকর্ড গড়েন সাকিব। ১০৮ উইকেটের মালিক বনে যাওয়ার পাশাপাশি টি-টোয়েন্টিতে সর্বাধিক উইকেটও তার। ৮৪ ম্যাচ খেলে ১০৭ উইকেট নিয়ে শেষ হয়েছে লাসিথ মালিঙ্গার ক্যারিয়ার। আজ প্রথম উইকেট নেওয়ার সময় লঙ্কান কিংবদন্তি ছুঁয়ে ফেলেন সাকিব। পরে লিস্ককে আউট করে এককভাবে সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রাহক বনে যান তিনি।

এবার মেহেদীতে কুপোকাত ক্যালাম ম্যাকলয়েড। এই স্কটিশ আউট হলেন ৫ রান করে। নিজের কোটার ৪ ওভারে ১৯ রান দিয়ে ৩ উইকেট অফ স্পিনার মেহেদীর। এই ফরম্যাটে এটি তার ক্যারিয়ার সেরা বোলিং।

সপ্তম উইকেটে পার্টনারশিপ জমিয়ে তোলেন মার্ক ওয়াট আর জশ ডেভি। তাদের জুটিতে ৫১ রানের জুটির উপর ভর করেই দলীয় রান একশোর কোটা পার করে স্কটল্যান্ড। ২২ রানে থাকা ওয়াটকে ফিরিয়ে এই জোট ভাঙেন তাসকিন। পরে ব্যাট হাতে ঝড় তোলেন জশ ডেভিস। তার ২৮ বলে খেলা ৪৫ রানের ইনিংসের কল্যাণে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৯ উইকেট হারয়ে স্কোর বোর্ডে ১৪০ রানের পুঁজি পায় স্কটল্যান্ড।

১৪০ রানের জবাব দিতে নেমে দুই ওপেনার ফেরার সময় বাংলাদেশের রান ছিল ১৮। এরপর সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিম তৃতীয় উইকেট জুটিতে ৪৬ বলে ৪৭ রান তোলেন। উইকেটে সেট হয়ে যখনই বড় শট খেলার চেষ্টা করতে গেলেন তখনই আউট হলেন দুজন। ক্রিস গ্রিভসকে হাঁকাতে গিয়ে ২৮ বলে ২০ রান করে আউট হয়েছেন সাকিব। মুশফিক এই গ্রিভসকেই স্কুপ করতে গিয়ে লাইন মিস করে বোল্ড। ৩৬ বলে ১টি চার ২টি ছয়ে ৩৮ রান করেন মুশি।

দুই অভিজ্ঞ ফেরার পর দল যে চাপে পড়েছিল পরে কেউই সেই চাপ কাটিয়ে তুলতে পারেননি। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ একের পর এক ডট বল খেলে দলের চাপ বাড়িয়েছেন। তরুণ আফিফ হোসেন বড় শট খেলার চেষ্টা করতে গিয়ে আউট হন ১২ বলে ১৮ রান করে।

শেষ তিন ওভারে ৩৭ রান লাগত বাংলাদেশের। মাহমুদউল্লাহ-আফিফ-শেখ মাহাদি সেই সমীকরণ মেলাতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৩৪ রানে থেমেছে বাংলাদেশ। শেষ দিকে মাহদি ৫ বলে ১৩ রান করে অপরাজিত ছিলেন। মাহমুদউল্লাহ ২২ বলে ২৩ রান করেন। স্কটল্যান্ডের হয়ে ব্র্যাড হুইল ২৪ রানে তিন উইকেট নিয়েছেন।

নিউজনাউ/পিপিএন/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান