জশনে জুলুস ২০ অক্টোবর, পাকিস্তান থেকে আসছেন সাবির শাহ

চট্টগ্রাম ব্যুরো: পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী উপলক্ষে আগামী ২০ অক্টোবর চট্টগ্রাম নগরীর জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলীয়া কামিল মাদরাসার মাঠে ধর্মীয় সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। মাদ্রাসা সংলগ্ন আলমগীর খানকাহ থেকে বের হবে জশনে জুলুস।

এবার জুলুসে নেতৃত্ব দেবেন পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনখোয়ার প্রদেশের সিরিকোট দরবার শরীফের উত্তরাধিকার হজরত সৈয়্যদ মুহাম্মদ সাবির শাহ (মজিআ)।

মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান আনজুমান-এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্টের সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন।

লিখিত বক্তব্যে জানানো হয়েছে, ২০ অক্টোবর বুধবার সকাল ৮টায় চট্টগ্রামের ষোলশহর জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলীয়া মাদরাসা সংলগ্ন আলমগীর খানকা থেকে সম্মিলিত শোভাযাত্রা শুরু হবে। নগরের বিবিরহাট, মুরাদপুর, মির্জারপুল, কাতালগঞ্জ, অলিখাঁ মসজিদ, চকবাজার, প্যারেড মাঠের উত্তর-পূর্ব পাশ, চন্দনপুরা, সিরাজউদ্দৌলা সড়ক, দিদার মার্কেট, দেওয়ান বাজার, আন্দরকিল্লা, মোমিন রোড, কদম মোবারক, চেরাগি পাহাড় মোড়, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব, জামালখান, কাজীর দেউড়ি, আলমাস-ওয়াসা, জিইসি, দুই নম্বর গেইট প্রদক্ষিণ করবে শোভাযাত্রা। এরপর আবার সুন্নিয়া মাদরাসার মাঠে ফিরবে। সেখানে মিলাদ মাহফিল, জোহরের নামাজ আদায় এবং দোয়া-মোনাজাত হবে।

প্রতিবছরের মতো এবারও শোভাযাত্রায় লাখো মানুষের সমাগম হবে বলে আশা আয়োজকদের। তবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ মোকাবিলায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা এবং চট্টগ্রামের বাইরের জেলাগুলো থেকে অংশগ্রহণ নিরুৎসাহিত করা হয়েছে। এর পরিবর্তে গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশকে নিজ নিজ জেলা সদরে ২০ অক্টোবর শোভাযাত্রা আয়োজনের জন্য বলা হয়েছে।

তবে আয়োজকদের আশঙ্কা চট্টগ্রাম নগরীতে উন্মুক্ত নালা নিয়ে। ইতোমধ্যে একমাসের ব্যবধানে চট্টগ্রাম নগরীতে নালায় পড়ে এক সবজি বিক্রেতা ও এক বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর করুণ মৃত্যু হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়েছে, শোভাযাত্রা নিয়ে শহর প্রদক্ষিণের সময় যাতে কোনো বিপদ না ঘটে, সেজন্য নালা-নর্দমার উপরিভাগ যেন উন্মুক্ত না থাকে, সে বিষয়ে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আল্লামা মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ অছিয়র রহমান, আনজুমান-এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্টের এডিশনাল সেক্রেটারি মুহাম্মদ সামশুদ্দীন, প্রেস অ্যান্ড পাবলিকেশন সেক্রেটারি কাজী সামশুর রহমান, জামেয়ার চেয়ারম্যান অধ্যাপক মুহাম্মদ দিদারুল ইসলাম, গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশের চেয়ারম্যান পেয়ার মুহাম্মদ, যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট মোছাহেব উদ্দিন বখতিয়ার, মাওলানা আবদুল্লাহ, সাবের আহমদ প্রমুখ।

প্রসঙ্গত আনজুমানের ব্যবস্থাপনায় ১৯৭৪ সাল থেকে চট্টগ্রামে জশনে জুলুস বের হচ্ছে।

নিউজনাউ/পিপিএন/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: