মেটাবলিজম বাড়ানোর উপায়

নিউজনাউ ডেস্ক: মেটাবলিজম জৈব রাসায়নিক প্রক্রিয়ার একটি সংমিশ্রণ যা শরীরের খাদ্যকে শক্তিতে রূপান্তরের জন্য ব্যবহার করে। মেটাবলিজম যা আমাদের শরীরের ক্যালোরি বার্ন করে। এই হার যা আপনার শরীরের শক্তি শক্তি (ক্যালোরি) মধ্যে রূপান্তরিত এবং তারপর প্রয়োজনীয় এবং অপরিহার্য দৈনিক ফাংশন সঞ্চালন শক্তি ব্যবহার করে। আমরা ক্যালোরি বা শক্তি জ্বালান যা হার যা বিপাকীয় হার বলা হয়। এই বিপাকীয় প্রক্রিয়ার অন্তর্ভুক্ত রয়েছে শ্বাস, খাওয়া এবং খাদ্য হজমকরণ, রক্তের মাধ্যমে আপনার কোষে পুষ্টি সরবরাহ, আপনার পেশী, স্নায়ু এবং কোষ দ্বারা শক্তি ব্যবহার এবং শেষে আপনার শরীরের বর্জ্য পণ্যগুলি বর্জন। মেটাবলিজম রেট দ্রুত হলে মেদ ঝরে, আবার মেটাবলিজম রেট শ্লথ হলে শরীরে মেদ জমে৷ জেনে নিন নিজের মেটাবলিজম রেট বাড়ানোর কিছু উপায়।

১/ প্রতি দিন ৬-৮ গ্লাস পানি পান করুন। এতে মেটাবলিজম রেট যেমন বাড়বে, তেমনই শরীর থেকে টক্সিন দূর হবে৷ খাওয়ার আগে বরফ ঠান্ডা পানি খেলে পেট তাড়াতাড়ি ভরে যাবে৷

২/ গ্রিন টি এবং কফি মেটাবলিজম বাড়াতে অনেক দারুণ সাহায্য করে থাকে। এছাড়াও, এই দুইটি পানীয়ের রয়েছে সুস্বাস্থ্য রক্ষায় নানা রকম গুণ। কফি এবং গ্রিন টিতে রয়েছে অনেক বেশী পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, যা রক্তের সুগার লেভেল কমিয়ে আনতে সাহায্য করে, অতিরিক্ত মেদ পোড়াতে সাহায্য করে এবং সেল্যুলাইট এর লক্ষণ কমাতে সাহায্য করে থাকে।

৩/ দিনের প্রথম খাবার ব্রেকফাস্ট৷ যা আমাদের সারা দিনের মেটাবলিজম রেট সেট করে। প্রতি দিন পুষ্টিকর ব্রেকফাস্ট করুন। সকালে ওঠার ১ ঘণ্টার মধ্যে ব্রেকফাস্ট করুন। বেশিক্ষণ না খেয়ে থাকলে মেটাবলিজম রেট কমে যাবে।

৪/ আদা, রসুন, হলুদ, সরিষা দানা, কালো গোলমরিচের মতো মশলা মেটাবলিজম আনেক বেশী রাখতে সাহায্য করে থাকে। এটা প্রমাণিত, যে ব্যক্তি তার প্রতিদিনের খাদ্যাভাসে মশলাযুক্ত খাবার রাখেন, সে প্রতিদিন ১০০০ ক্যালরি বেশী পোড়াতে সক্ষম হন।

৫/ মেটাবলিজমের মাত্রা বাড়াতে চাইলে আপনার উচিৎ প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়ামযুক্ত খাবার খাওয়া। ইউনিভার্সিটি অফ টেনেস এক গবেষণা থেকে নিশ্চিত করেছে, যে ব্যক্তি দৈনিক ১২০০-১৩০০ মিলিগ্রাম পরিমাণ ক্যালসিয়াম গ্রহণ করে, এবং যারা এর চেয়ে কম পরিমাণ ক্যালসিয়াম গ্রহণ করে তাদের তুলনায় সে দিগুণ দ্রুততায় ওজন কমাতে সক্ষম হন।

৬/ ফাইবার আমাদের মেটাবলিজম রেট ৩০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়িয়ে দেয়৷ যারা ফাইবার বেশি খায় তাদের শরীরে মেদ জমে না। রোজ অন্তত ২৫ গ্রাম ফাইবার খান৷ শাক-সব্জি, দানা শস্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ফাইবার।

৭/ এক্সারসাইজ, জগিং করা সম্ভব না হলেও প্রতি দিন অন্তত ২-৩ কিলোমিটার হাঁটুন নিয়ম করে। এক্সারসাইজ দিনের যেকোনও সময়ের জন্যই ভাল। কিন্তু বিকেলের পর থেকে আমাদের মেটাবলিজম রেট কমতে থাকে। তাই ডিনারের আগে ১ ঘণ্টা এয়ারোবিক্স বা রাতে শোওয়ার আগে যোগাভ্যাস করলে উপকার পাবেন।

৮/ ওজন কমানোর জন্যে আপেল এবং নাশপাতি সবচেয়ে দারুণ ফল। এই দুই ফলে ক্যালরি অনেক কম এজন্য নয় বরং মূল কারণ হলো এই দুই ফল আপনার শরীরের মেটাবলিজম বাড়ায়। বলা হয়ে থাকে যেকোনো নারী/পুরুষ যদি দিনে ডায়েট আর এক্সারসাইজের পাশাপাশি তিনটি আপেল অথবা একটি নাশপাতি খেতে পারেন তাহলে অনেক দ্রুত ওজন কমাতে সক্ষম হবেন। কমলালেবু, জাম্বুরা এবং লেবুর মতো ফলোগুলো আপনার ওজন নিয়ন্ত্রনে রাখতে এবং আপনার মেটাবলিজম এর মাত্রা বেশী রাখতে সাহায্য করে থাকে।

৯/ ওমেগা-3 ফ্যাটি অ্যাসিড সাধারণত পাওয়া যায় মাছ থেকে। তবে বাদাম বীজ ইত্যাদিতেও পাওয়া যায়। এই খাদ্যগুলো শরীরে মেটাবলিজম বাড়াতে সাহায্য করে কারণ, এগুলো লেপটিন নামক একটি হরমোন কমাতে সাহায্য করে। এই হরমোন মূলত মেটাবলিজম কমাতে কাজ করে থাকে।
এছাড়াও মাছ, প্রোটিনযুক্ত খাবার, ঠান্ডা পানি, ঝাল খাবার যেমন গ্রিন চিলিও মেটাবলিজম বাড়ায়।

১০/ ঠিকমতো ঘুম না হলে আমাদের শরীরে স্ট্রেস হরমোনের ক্ষরণ বাড়ে। যার ফলে মেটাবলিজম রেট কমে৷ শরীরে মেদ জমে৷ প্রতিদিন অন্তত ৬-৭ ঘণ্টা ঘুমান।

নিউজনাউ/শাজা/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান