‘রক্ত গৌরব’ বদ্ধভূমি নিয়ে নির্মিত হচ্ছে পরিবেশ থিয়েটার

রংপুর ব্যুরো: স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি দেশের ৬৪ জেলার বদ্ধভূমি নিয়ে পরিবেশ থিয়েটার নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর অংশ হিসেবে রংপুর জেলার নিশবেতগঞ্জে ‘রক্ত গৌরব’ বদ্ধভূমি নিয়ে নির্মিত হচ্ছে পরিবেশ থিয়েটার। রংপুর ক্যান্টনমেন্ট ঘেরাওয়ের অনন্য ইতিহাসকে ঘিরে সুমিত মোহন্তের রচনায় এর নির্দেশনায় রয়েছেন রাজ্জাক মুরাদ।

এ লক্ষে বুধবার রাতে রংপুরের সকল নাট্যকর্মীদের নিয়ে জেলা শিল্পকলা একাডেমীর হলরুমে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা শিল্পকলা একাডেমির কালচারাল অফিসার নুঝাত তাবাসসুম রিমু। ১০টি নাট্য সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সভায় বক্তব্য রাখেন। সম্পূর্ণ অনুষ্ঠান উপস্থাপন করেন নাটকের নির্দেশক রাজ্জাক মুরাদ। আগামী ১১ সেপ্টেম্বর শিল্পী বাছাইয়ের জন্য সাক্ষাৎকার গ্রহণ করা হবে। রংপুরের বিপুল সংখ্যক অভিনয় শিল্পী মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, ঐতিহাসিক ২৮ মার্চ রংপুরবাসীর কাছে অবিস্মরণীয় দিন। ২৬ মার্চ আনুষ্ঠানিকভাবে মুক্তিযুদ্ধ শুরুর মাত্র একদিন পরই রংপুরবাসী ক্যান্টনমেন্ট ঘেরাও করে যে ইতিহাস সৃষ্টি করেছিল সে পথ ধরেই সূচিত হয়েছিল মুক্তিযুদ্ধের সশস্ত্র সংগ্রাম। স্বাধীনতা প্রিয় প্রতিবাদী রংপুরবাসী ৭১’র ওই দিনে লাঠি-সোঠা, তীর-ধনুক নিয়ে রংপুর ক্যান্টনমেন্ট ঘেরাও করে জন্ম দিয়েছিল এক অনন্য ইতিহাসের। স্বাধীনতার চেতনায় উদ্বুদ্ধ মানুষ রংপুরের বিভিন্ন অঞ্চল হতে এসে রংপুর ক্যান্টনমেন্ট আক্রমণ করে। এভাবে পাকিস্তানি হায়েনাদের আবাসস্থল ক্যান্টনমেন্ট আক্রমণের ঘটনা ইতিহাসে বিরল। এমনি এক ঘটনাই সেদিন ঘটিয়েছিলেন রংপুরের বীর জনতা। সেদিন সন্ধ্যার আগেই নির্দেশ মতো পাকসেনারা ৫০০ থেকে ৬০০ মুক্তিকামী মানুষের মৃতদেহ পেট্রল ঢেলে জ্বালিয়ে দিয়েছিল।

কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য, সেদিনের সেই ত্যাগের স্বীকৃতি জাতীয়ভাবে আজো মেলেনি। তবে ক্যান্টনমেন্ট ঘেরাও অভিযানে যেখানে আত্মত্যাগী মানুষগুলো শেষবারের মত একত্রিত হয়েছিল সেই ঐতিহাসিক নিসবেতগঞ্জ এলাকায় ২০০৩ সালে ‘রক্ত গৌরব’ নামে নির্মিত হয় একটি স্মৃতিস্তম্ভ যা আজও নীরবে দাঁড়িয়ে রয়েছে।

নিউজনাউ/আরবি/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: